মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২১, ১১:৫৬ অপরাহ্ন

Notice :
প্রকাশ্যে ধূমপান করে তোপের মুখেপড়া এক তরুণীর ভিডিও ভাইরাল।চরমোনাই পীরের ওয়াজ মাহফিল বাতিল।বিএনপির কোনো নেতাকর্মী যেন পদ্মা সেতু পার না হয় বললেন শাজাহান খান।জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য অনুযায়ী, ভাতাপ্রাপ্ত প্রায় দুই হাজার বীর মুক্তিযোদ্ধার বয়স ৫০–এর নিচে।করোনা আক্রান্ত কনের অভিনব পদ্ধতিতে বিয়ে (ভিডিও)আবাসিক হোটেলে জনপ্রিয় অভিনেত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ।পুলিশে হঠাৎ বড় রদবদল।ইউটিউবে যাত্রা শুরু করছেন মিজানুর রহমান আজহারী।
সর্বশেষ সংবাদ :
৩৮ জন মিলে ১৭ বছরের তরুণীকে একাধিকবার ‘ধর্ষণ। আজকের ক্রাইম-নিউজ নৌকায় ভোট না দিলে কেন্দ্র না আসতে আওয়ামী লীগ নেতার ‘হুমকি। আজকের ক্রাইম-নিউজ নিক্সন চৌধুরী বাচ্চা ছেলে: কাদের মির্জা। আজকের ক্রাইম-নিউজ বিচারের বাণী নিভৃতে কাঁধে খাগড়াছড়ির মানিকছড়িতে স্বামীর অধিকার বঞ্চিত এক নববধুর আত্মহত্যা। আজকের ক্রাইম-নিউজ ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের সব ভুল ভেঙে গেছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। আজকের ক্রাইম-নিউজ প্রেমিকার সঙ্গে রাত কাটাতে গিয়ে গ্রামবাসীর হাতে আটক পুলিশ। আজকের ক্রাইম-নিউজ ঝালকাঠি ছাত্রলীগ নেতার পিতা ভুয়া মেজর গ্রেপ্তার। আজকের ক্রাইম-নিউজ চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাসি সেই সাগর সেরনিয়াবাদ যে করোনা মহামারীতে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছিয়েছেন ঘরে ঘরে। আজকের ক্রাইম-নিউজ বরিশালে বিএনপি নেতৃবৃন্দের সাথে তারেক রহমানের ভার্চুয়ালে আলোচনা সভা। আজকের ক্রাইম-নিউজ কাগজ দেখতে চাওয়ায় সার্জেন্টকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করল মোটরসাইকেল চালক। আজকের ক্রাইম-নিউজ
আলমডাঙ্গায় দূর্বৃত্তদের দেওয়া আগুনে আরজু খাতুন উপার্জনের শেষ সম্বল টুক হারিয়ে সর্বশান্ত: আজকের ক্রাইম-নিউজ

আলমডাঙ্গায় দূর্বৃত্তদের দেওয়া আগুনে আরজু খাতুন উপার্জনের শেষ সম্বল টুক হারিয়ে সর্বশান্ত: আজকের ক্রাইম-নিউজ

মো: জাকিরুল ইসলাম, দামুড়হুদা উপজেলা প্রতিনিধি::-

আলমডাঙ্গায় কে বা কারা আগুন দিয়ে আরজু খাতুন উপার্জনের শেষ সম্বল টুক হারিয়ে সর্বশান্ত হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার গভীর রাতে বেলগাাছি গ্রামের আরজু খাতুনের উপার্জনের শেষ সম্বল চা ও মুদি দোকানটি কে বা কারা পুড়িয়ে দিয়েছে।জানা গেছে, বেলগাছি মোল্লাপাড়ার মনোয়ার হোসেন দেড়মাস আগে মরণ ব্যাধি ক্যান্সার আক্রান্ত হয়ে মারা যায়। পরিবারের একমাত্র উপার্জন সক্ষমব্যক্তি মারা যাওয়ার পর মৃত মনোয়ার হোসেনের স্ত্রী আরজু খাতুন তার কিশোর দুই সন্তানকে নিয়ে অতি কষ্টে বসত করে আসছিল। স্বামী রেখে যাওয়া শেষ সম্বল টুকু দিয়ে চা ও মুদি দোকান চালিয়ে সংসার চালিয়ে কোন রকমে দিন যাপন করে আসছিল। সন্ধার পর দোকান বন্ধ করে দুই ছেলেকে নিয়ে বাড়িতে চলে যায়। মধ‍্যরাতে প্রতিবেশিদের ডাক চিৎকারে আরজু খাতুন জানতে পারে তার উপার্জনের শেষ সম্বল দোকানটিতে কে বা কারা আগুন লাগিয়ে দিয়েছে। আরজু খাতুন চিৎকার করতে করতে দোকানে নিকট ছুটে গিয়ে দেখতে পায় সবকিছু পুড়ে গেছে। আরজু খাতুন জানান, তার স্বামী এই চায়ের দোকান চালিয়েই সংসার চালাত। তার স্বামী গত দেড় মাস আগে মরণব্যাধি ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যায়। স্বামী মারা যাওয়ার পর দুই ছেলেকে নিয়ে স্বামীর রেখে যাওয়ার শেষ সম্বলটি অবলম্বন করে বাঁচার আশা দেখেছিলাম। কিন্তু আমার শেষ সম্বল টুকু বৃহস্পতিবার রাতে দূর্বৃত্তদের দেওয়া আগুনে শেষ হয়ে যায়।

এ আগুন জ্বালিয়ে তারা শুধু আমার দোকানকে জ্বালিয়ে দিলো না , জ্বালিয়ে দিলো আমার এতিম শিশুদের মুখের আহার যোগানোর একমাত্র সম্বল টুকু। এখন আমার ছোট ছোট দুই সন্তান নিয়ে অথৈ পাথারে পড়েছি। কি করে সন্তানদের লেখাপড়া শিখিয়ে মানুষের মত মানুষ করবো। সেই আশা অনিশ্চিত হয়ে দাঁড়ায়েছে।এলাকাবাসি জানায়, গভীর রাতে আরজু খাতুনের চা ও মুদি দোকানে আগুন দেখে পাড়ায় হৈচৈ শুরু হয়। ব্রিজের নিকট ছুটে এসে দেখতে পায় আরজু খাতুনের দোকানে দাও দাও করে আগুন জ্বলছে। এরই মধ্যে আরজু খাতুন সংবাদ পেয়ে কান্না করতে করতে ছুটে আসে। পাড়ার সবাই মিলে ক্যানেল থেকে পানি তুলে আগুন নেভানোর চেষ্টা করি। ততক্ষনে আরজু খাতুনের শেষ সম্বল চা ও মুদি দোকান পুড়ে ভ’ষিভ’ত হয়ে যায়। আরজু খাতুনের সাথে গ্রামের কারো কোন শত্রুতা নেই। তবে কে বা কাহার তার দোকানে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে তা কেউ বলতে পারিনি।এ ব‍্যাপারে আরজু খাতুন আলমডাঙ্গা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019
Bengali English