রবিবার, ১৩ Jun ২০২১, ০৩:৩২ পূর্বাহ্ন

Notice :
চাকরির পেছনে না ছুটে উদ্যোক্তা হওয়ার পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর
সর্বশেষ সংবাদ :
নকল গয়না নিয়ে মারামারি, কনেকে তালাক, জরিমানা দিয়ে রক্ষা বরপক্ষের। পুলিশ সুপারের নির্দেশে দুগ্ধপোষ্য মুমূর্ষ শিশুকে উদ্ধার করলো ডিবি পুলিশ। সিলেট এবছর শাহ্ জালাল (রহ.) মাজারে ওরস হচ্ছে না। বানারীপাড়ায় ইয়াবা সহ ঝালকাঠির মাদক কারবারি বিশ্বজিৎ আটক। শাস্তি মেনে নিয়েছেন সাকিব, হচ্ছে না শুনানি। কাজ বাগিয়ে নিতে গণপূর্ত অফিসে আ’লীগ নেতার অস্ত্রের মহড়া। ব্যবসার নামে প্রতারণার প্রতিবাদে তালতলী উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানের সংবাদ সম্মেলন। পাবজি খেলাকে কেন্দ্র করে বিরোধ, ফরিদপুরে অবরুদ্ধ একটি পরিবার। করোনার চেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচন : সিইসি। ভোলায় তথ্য গোপন করে একাধিক বিয়ে করে ২ নারী গ্রেপ্তার।
অপহরণ মামলায় পুলিশ কনস্টেবল কারাগারে।

অপহরণ মামলায় পুলিশ কনস্টেবল কারাগারে।

মনির হোসেন ঝালকাঠি প্রতিনিধি:: অপহরণ ও ছিনতাইয়ের মামলায় সাইফুল ইসলাম (৩২) নামের এক পুলিশ সদস্যকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। তিনি বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশে কনস্টেবল পদে কর্মরত।

রােববার (৩০ মে) দুপুরে ঝালকাঠির সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এএসএম তারিক শামস জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানাের নির্দেশ দেন।

সাইফুল ইসলাম ঝালকাঠির নলছিটি পৌর শহরের সবুজবাগ এলাকার নুরুল ইসলামের ছেলে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, নলছিটির

কুশঙ্গল ইউনিয়নের বিন্দুঘােষ এলাকার মৃত সােহরাব হােসেনের ছেলে আল আমিন শরীফের সঙ্গে কনস্টেবল সাইফুল ইসলামের পরিবারের জমি নিয়ে দীর্ঘদিনের বিরােধ রয়েছে। তারা পরস্পরের আত্মীয়। ২০২০ সালের ৯ জুলাই আল আমীন শরীফ তার এক আত্মীয়ের বাড়িতে যাওয়ার সময় কুশঙ্গল ইউনিয়নের বিহঙ্গল এলাকা থেকে অপহৃত হন।
অপহরণকারীরা তার কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা কেড়ে নিয়ে ছেড়ে দেয়। এ ঘটনায় ২০ জুলাই আল আমিন শরীফের স্ত্রী রূপা বেগম বাদী হয়ে চারজনের নাম উল্লেখ করে নলছিটি থানায় একটি মামলা করেন।

মামলার এজাহারে সাইফুল ইসলামের নাম ছিল না। পরে আদালতের কাছে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তির দেওয়া জবানবন্দির ভিত্তিতে সাইফুলের নাম উঠে আসে এবং তাকে আসামি করা হয়।

এ বিষয়ে আদালতের কয়েদখানায় সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘এটি একটি মিথ্যা ও বানােয়াট মামলা।’

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019
Bengali English