সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ১২:৪২ অপরাহ্ন

Notice :
প্রকাশ্যে ধূমপান করে তোপের মুখেপড়া এক তরুণীর ভিডিও ভাইরাল।চরমোনাই পীরের ওয়াজ মাহফিল বাতিল।বিএনপির কোনো নেতাকর্মী যেন পদ্মা সেতু পার না হয় বললেন শাজাহান খান।জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য অনুযায়ী, ভাতাপ্রাপ্ত প্রায় দুই হাজার বীর মুক্তিযোদ্ধার বয়স ৫০–এর নিচে।করোনা আক্রান্ত কনের অভিনব পদ্ধতিতে বিয়ে (ভিডিও)আবাসিক হোটেলে জনপ্রিয় অভিনেত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ।পুলিশে হঠাৎ বড় রদবদল।ইউটিউবে যাত্রা শুরু করছেন মিজানুর রহমান আজহারী।
সর্বশেষ সংবাদ :
মন্ত্রীর স্ত্রী পরিচয়ে খাস কামরায় ঢুকে বিচারককে হুমকি। আজকের ক্রাইম-নিউজ

মন্ত্রীর স্ত্রী পরিচয়ে খাস কামরায় ঢুকে বিচারককে হুমকি। আজকের ক্রাইম-নিউজ

আজকের ক্রাইম ডেক্স
মন্ত্রীর স্ত্রীর পরিচয় দিয়ে জামালপুরে বিচারকের ব্যক্তিগত কক্ষে (খাস কামরা) প্রবেশ করে হুমকি দেয়ার ঘটনায় আরিফা বেগম (৩৫) নামে এক নারীকে আটক করেছে পুলিশ।

বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) জামালপুরের অতিরিক্ত সহকারী জজ আদলতের বিচারক মো. ইকবাল মাহমুদের খাস কামরা থেকে তাকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

আটক আরিফা বেগম জামালপুর সদর উপজেলার রানাগাছা ইউনিয়নের কানিল এলাকার মো. শফিকুল ইসলামের স্ত্রী।

জামালপুর ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক মো. মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘গত সোমবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) বিকালে সাবেক ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মোহাম্মদ আব্দুল ওয়াহাব মিঞার নাতির পরিচয়ে জামালপুরের অতিরিক্ত সহকারী জজ আদালতের বিচারক একেএম ছিফাতুল্লাহর মোবাইল ফোনে কল দেন জামালপুর সদরের কানিল এলাকার মো. শফিকুল ইসলাম। তিনি একটি মামলার আদেশ কি হয়েছে তা জানতে চেয়ে হুমকি দেন। এরপর থেকে শফিকুল ইসলাম ছাড়াও একনারী একাধিকবার ফোন করে হুমকি দেয়া অব্যহত রাখেন। এ ঘটনায় পরদিন মঙ্গলবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) অতিরিক্ত সহকারী জজ আদালতের সেরেস্তাদার মো. মাহবুবুর রহমান জামালপুর সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।

বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে আরিফা বেগম নামে ওই নারী সিনিয়র সহকারী জজ আদালতের বিচারক মো. ইকবাল মাহমুদের ব্যক্তিগত কক্ষে (খাস কামরা) প্রবেশ করে নিজেকে মন্ত্রীর স্ত্রী পরিচয় দেন। এসময় তাদের বিরুদ্ধে কেন থানায় জিডি করা হয়েছে এ বিষয়ে হুমকি দিতে থাকেন। পরে ল্যান্ডসার্ভে ট্রাইব্যুনালের বিচারকসহ কয়েকজন বিচারক ওই নারীকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে কোর্ট পুলিশে সোপর্দ করেন।

একই আদালতের সেরেস্তাদার মো. মাহবুবুর রহমান বাদী হয়ে সদর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেন।

কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক রুবেল মিয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।’

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019
Bengali English