বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১, ০৭:৫২ অপরাহ্ন

Notice :
প্রকাশ্যে ধূমপান করে তোপের মুখেপড়া এক তরুণীর ভিডিও ভাইরাল।চরমোনাই পীরের ওয়াজ মাহফিল বাতিল।বিএনপির কোনো নেতাকর্মী যেন পদ্মা সেতু পার না হয় বললেন শাজাহান খান।জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য অনুযায়ী, ভাতাপ্রাপ্ত প্রায় দুই হাজার বীর মুক্তিযোদ্ধার বয়স ৫০–এর নিচে।করোনা আক্রান্ত কনের অভিনব পদ্ধতিতে বিয়ে (ভিডিও)আবাসিক হোটেলে জনপ্রিয় অভিনেত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ।পুলিশে হঠাৎ বড় রদবদল।ইউটিউবে যাত্রা শুরু করছেন মিজানুর রহমান আজহারী।
সর্বশেষ সংবাদ :
এক সন্তানের পিতৃত্বের দাবি নিয়ে হাসপাতালে তিন বাবা! আজকের ক্রাইম-নিউজ ইউপি নির্বাচনে বিদ্রোহীদের ছাড় নয় : কাদের। আজকের ক্রাইম-নিউজ লাশ কাটা ঘরে নড়ে উঠল মৃত যুবক! আজকের ক্রাইম-নিউজ ভয়াবহ বিপর্যয়ের মুখে পৃথিবী! আজকের ক্রাইম-নিউজ ২৬ মার্চের মধ্যে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি। আজকের ক্রাইম-নিউজ হবিগঞ্জে ট্যাংক বিধ্বংসী ১৮ রকেট শেল উদ্ধার। আজকের ক্রাইম-নিউজ আওয়ামী লীগ থেকে বহিস্কৃত ও পদত্যাগী চেয়ারম্যান মিন্টুর ভিজিডির চাল বিতরণ নিয়ে প্রশ্ন ! আজকের ক্রাইম নিউজ ঝিনাইদহ সীমান্তে বিজিবি’র হাতে ১২জন বাংলাদেশী নাগরিক আটক। আজকের ক্রাইম-নিউজ বিএনপির ভয়ে বাস চালায় না মালিকরা। আজকের ক্রাইম-নিউজ পুলিশ হেফাজতে শিক্ষানবিশ আইনজীবীর মৃত্যু, বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ। আজকের ক্রাইম-নিউজ
স্ত্রীর নির্যাতন থেকে বাঁচতে থানায় স্বামীর অভিযোগ দায়ের। আজকের ক্রাইম-নিউজ

স্ত্রীর নির্যাতন থেকে বাঁচতে থানায় স্বামীর অভিযোগ দায়ের। আজকের ক্রাইম-নিউজ

অনলাইন ডেস্ক:: আহাম্মদ শরিফ নামে এক কাপড় ব্যবসায়ীর অভিযোগ বিয়ের পর থেকেই তার স্ত্রী রোকেয়া বেগম মায়া তাকে নানা সময় শারীরিক নির্যাতন করেন। স্ত্রী রোকেয়া বেগম মায়া জোরপূর্বক তার কাছে জমি চায়। এ ঘটনায় তার স্ত্রীকে তার পুত্র, মেয়ে, শ্যালক ও ভায়রা সহযোগিতাও করেন।
শেষাবধি নির্যাতনের শিকার ওই কাপড় ব্যবসায়ী নিজেকে বাচাতে স্ত্রীর বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ তুলে স্থানীয় থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগপত্রে স্ত্রীর পাশাপাশি তার পুত্র, মেয়ে, শ্যালক ও ভায়রাকেও আসামি করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা থানায় ।

থানা সূত্রে জানা গেছে, আহাম্মদ শরিফ উপজেলার দক্ষিণ গড্ডিমারী গ্রামের নাছের উদ্দিনের ছেলে। তিনি হাতীবান্ধা শহরে কাপড়ের ব্যবসা করেন। আহাম্মদ শরিফ তার স্ত্রী, পুত্র আহসান হাব্বি মোজাহিদ, মেয়ে আসমাউল হুসনা সোনিয়া, শ্যালক আ. ছালাম রোকন ও ভায়রা কোরবান আলীকে আসামিকে করে একটি অভিযোগ দিয়েছেন।

আহাম্মদ শরিফ তার অভিযোগপত্রে দাবি করেন। তাদের নির্যাতন থেকে বাঁচতে গত ৫ মে আহাম্মদ শরিফকে আদালতের মাধ্যমে স্ত্রী রোকেয়া বেগম মায়াকে তালাক প্রদান করেন। কিন্তু তারপরও গত ১১ জুন তার স্ত্রী, ছেলে, মেয়ে, শালক ও ভায়রা তাকে নির্যাতন করেন।
আহাম্মদ শরিফ বলেন, ‘আমাকে শুধু আমার স্ত্রী নয়, আমার ছেলেও কয়েকবার নির্যাতন করেছে। এলাকায় গেলে শত শত মানুষ সাক্ষী দেবে।’

তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে তার স্ত্রী রোকেয়া বেগম মায়া বলেন, ‘আমার স্বামী দ্বিতীয় বিয়ের অনুমতি চেয়েছিলেন। অনুমতি না দেওয়ায় তিনি আমাকে নির্যাতন করেন।’

হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওমর ফারুক বলেন, ‘ইতিমধ্যে সহকারী পুলিশ সুপারসহ আমি সরেজমিন তদন্ত করেছি। পুরো বিষয়টি আরও অধিকতর তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019
Bengali English