শুক্রবার, ১৮ Jun ২০২১, ০৮:১১ পূর্বাহ্ন

Notice :
চাকরির পেছনে না ছুটে উদ্যোক্তা হওয়ার পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর
সর্বশেষ সংবাদ :
ভালুকায় ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে মানববন্ধন।

ভালুকায় ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে মানববন্ধন।

এস.এম.সুজন খান, বিশেষ প্রতিনিধিঃ-
ময়মনসিংহের ভালুকায় ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করার প্রতিবাদে উপজেলা পরিষদের সামনে ভালুকা গফরগাঁও সড়কে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসি। অসাধু বন কর্মকর্তার ঘুষ বানিজ্যে ঘুষ না পেয়ে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করার প্রতিবাদে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী মামলা পত্যাহারের দাবিতে বৃহস্পতিবার (২০ মে) ভোক্তভোগী ও নির্যাতিত পরিবারের পক্ষে এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। এসময় বক্তারা ৬নং ভালুকা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়াম্যানের বিরুদ্ধে গত রোববার (১৬মে) তাকে প্রধান আসামী করে তার ম্যানেজার সুরুজ মিয়া, খলিলুর রহমান খানসহ অজ্ঞাতনামা ১৫/২০ জনের বিরুদ্ধে গাছ চুরির অভিযোগ এনে ভালুকা মডেল থানায় যে মামলা (নং ৩১, তাং, ১৬/৫/২১ ) করেছেন সেই মামলা কে মিথ্যা আখ্যা দিয়ে হয়রানী বন্ধের দাবী জানান।বক্তাদের দাবী হাজির বাজার ক্যাম্প ইনচার্জ এ,কে,এম সাফেরুজ্জামান ভালুকা রেঞ্জ কর্মকর্তা ও হবিরবাড়ী বিট কর্মকর্তার নাম ভাঙ্গিয়ে চেয়াম্যানের কাছে পাঁচ লক্ষ টাকা ঘুষ দাবী করেন। দাবীকৃত ঘুষের টাকা না দেয়ায় এ হয়রানী মূলক মামলা করেছে।
জানাযায় যে যায়গা থেকে গাছ কাটা হয়েছে সে যায়গাটি জেলা প্রশাসক ময়মনসিংহ বন্দোবস্ত মোকদ্দমা নং,৫৩৪(x11)৮০-৮১/৭২৭(x11)৮০-৮১মুলে সৈয়দ জয়নাল আবেদিন বিগত-৮-১১-১৯৮১ইং, ৯৪৪৩ রেজিঃ কৃত কবলিয়ত দলিল মুলে সাবেক ১৫০নং দাগে, হালদাগ-৭২৪, দাগে-১.৫০একর জমি ভোগ দখলে আছেন, পরে-৩০৫নং জমাখারিজ খতিয়ান খোলারপর নিয়মিত পরিশোধ করে আসছেন, বর্তমানে জয়নাল আবেদিনের নামে ডিপি-১৬৮খতিয়ান প্রচারিত হয়।
চেয়ারম্যান শিহাব আমীন খান জানান, মামলায় উল্লেখিত মেহেরাবাড়ি মৌজার ১৫০ নং দাগের যে জমি থেকে গাছ কাটা হয়েছে ওই জমি দীর্ঘদিন যাবত অন্যজন ভোগদখল করে আসছেন। সেই ব্যক্তির জমিতে আমি ও আমার লোকজন গাছ কাটতে যাব কেন? প্রকৃত ঘটনা হলো একই দাগে আমাদের ক্রয়কৃত কিছু জমির মালিকানা নিয়ে বন বিভাগে সাথে বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেটের আদালতে একটি মামলা চলমান রয়েছে। ওই সংক্রান্ত বিষয়ে মামলার বাদী হাজির বাজার ক্যাম্প কর্মকর্তা এ,কে,এম সাফেরুজ্জামানসহ কতিপয় কর্মকর্তা দীর্ঘদিন যাবত আমার কাছে ৫ লাখ টাকা ঘুষ দাবী করে আসছিল। তাদের দাবীকৃত ওই ঘুষের টাকা না পাওয়ায়, আমাকে হয়রানির উদ্দেশ্যে প্রতিহিংসা বসত বন বিভাগ এ মিথ্যে মামলা দায়ের করেছেন।
এলাকাবাসিরা বলেন যদি কেউ নিজেদের জমিতে ঘরবাড়ি উঠাতে যায় বন বিভাগ অহেতুক মিথ্যা মামলার ভয় দেখিয়ে লোকজনের কাছ থেকে টাকা পয়সা হাতিয়ে নেয়। চাহিদামত টাকা না দিলে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন, ইউপি সদস্য বুলবুল হোসেন খান, রফিকুল ইসলাম, ফারুখ হোসেন, হাফিজুল ইসলাম, সোহেল রানা, আবুল হোসেন খান, আঃ ওয়াহাব, মহিলা মেম্বার রহমত আরা খানম, ইউনিয়ন যুবলীগের যগ্ন আহবায়ক কামরুল ইসলাম, ভালুকা আঞ্চলিক শ্রমিকলীগের যুগ্ন সম্পাদক আসাদুজ্জামান, এলাকাবাসী খোকন হোসেন, আব্দুর রশীদ, মোঃ রিপন মিয়া প্রমুখ।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019
Bengali English