মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ১২:৫৪ অপরাহ্ন

Notice :
প্রকাশ্যে ধূমপান করে তোপের মুখেপড়া এক তরুণীর ভিডিও ভাইরাল।চরমোনাই পীরের ওয়াজ মাহফিল বাতিল।বিএনপির কোনো নেতাকর্মী যেন পদ্মা সেতু পার না হয় বললেন শাজাহান খান।জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য অনুযায়ী, ভাতাপ্রাপ্ত প্রায় দুই হাজার বীর মুক্তিযোদ্ধার বয়স ৫০–এর নিচে।করোনা আক্রান্ত কনের অভিনব পদ্ধতিতে বিয়ে (ভিডিও)আবাসিক হোটেলে জনপ্রিয় অভিনেত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ।পুলিশে হঠাৎ বড় রদবদল।ইউটিউবে যাত্রা শুরু করছেন মিজানুর রহমান আজহারী।
প্রধানমন্ত্রীর ‘বিশেষ সহকারী’ দাবি করা প্রতারক মুদি দোকানি।

প্রধানমন্ত্রীর ‘বিশেষ সহকারী’ দাবি করা প্রতারক মুদি দোকানি।

আজকের ক্রাইম ডেক্স
চারিদিকে প্রতারণার ভয়ঙ্কর ফাঁদ। শহর থেকে গ্রামগঞ্জে বিস্তৃত প্রতারকদের নেটওয়ার্ক। চাকরি দেয়া থেকে শুরু করে বিদেশে লোক পাঠানো সর্বত্র অবাধ বিচরণ প্রতারকদের। প্রতারণার শিকার অশিক্ষিত থেকে উচ্চশিক্ষিত। বাদ যাচ্ছে না আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরাও। পুলিশ বলছে, মানুষ ঠকানোকে পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছে এক শ্রেণির মানুষ। ফাঁদে পা দিয়ে সর্বশান্ত হচ্ছে শত শত মানুষ।

অপরাধের সিংহভাগ এখন প্রতারকদের দখলে। জাতীয় পরিচয়পত্র, পাসপোর্ট, লোভনীয় চাকরি, বিদেশে লোক পাঠানো, বিদেশি উপহার, বিয়ে-তালাক এমনকি করোনার নমুনা পরীক্ষার নামে চলছে প্রতারণা।
প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী দাবি করা আইয়ুব আলী নামে এক ব্যক্তি পেশায় মুদি দোকানি। মাধ্যমিকের গণ্ডি পাড়ি দিতে না পারলেও রপ্ত করেছেন প্রতারণার বহুমাত্রিক কৌশল। মোটা অংকের বেতন দিয়ে রেখেছেন একজন ব্যক্তিগত সহকারীও। কথায় কথায় পুলিশকে ধমক দেওয়া এ কথিত বিশেষ সহকারী এখন গোয়েন্দা জালে ধরা।

নিয়োগ, বদলি, ভর্তি বাণিজ্যসহ নানা ধরণের তদবিরে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এক প্রটোকল অফিসারের ভুয়া সিল স্বাক্ষর ব্যবহার করতেন আইয়ুব আলী। নিজেকে পরিচয় দিতেন ওই প্রটোকল অফিসারের ছেলে হিসেবেও।
পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ সিআইডি সাইবার সম্পর্কিত অন্তত ছয় ধরণের প্রতারণার তথ্য সংরক্ষণ করে। যার মধ্যে ফেসবুকে হয়রানি, বিকাশ প্রতারণা, অনলাইনে পণ্য কিনতে গিয়ে প্রতারণা, ডলার ক্রয়-বিক্রয়, নাইজেরিয়ান ফ্রড এবং অনলাইন ব্ল্যাকমেইলিং অন্যতম। গোয়েন্দা পুলিশের তথ্যও একই রকম।
সময়নিউজকে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের গুলশান জোনের উপ-পুলিশ কমিশনার মশিউর রহমান বলেন, দেশে বিভিন্ন শিক্ষিত-অশিক্ষিত মানুষরা প্রতারণাকে একটা শিল্পে রুপান্তর করেছেন। আমরা যারা সাধারণ মানুষ আছি তারাও অন্যায়ভাবে অযোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও চাকরি বা বদলির জন্য এ সমস্ত দালালদের দারস্ত হই।
প্রতারণা রোধে আরো কঠোর আইন দরকার বলে মনে করেন সমাজ ও অপরাধ বিশেষজ্ঞ তৌহিদুল হক।
তৌহিদুল হক বলেন, এটি কোনোভাবে আপনি বন্ধ করতে পারবেন না যতক্ষণ না আপনি আদর্শিক জায়গাগুলোর চর্চাতে না আসেন, যথাযথভাবে আপনি আইনে ব্যবস্থা না করতে পারেন।
এসব ফাঁদ থেকে রক্ষা পেতে শুধু আইন প্রয়োগকারী সংস্থার ওপর নির্ভর না করে সচেতন হওয়ার পরামর্শও দেন তিনি।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019
Bengali English