মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ০১:২১ অপরাহ্ন

Notice :
প্রকাশ্যে ধূমপান করে তোপের মুখেপড়া এক তরুণীর ভিডিও ভাইরাল।চরমোনাই পীরের ওয়াজ মাহফিল বাতিল।বিএনপির কোনো নেতাকর্মী যেন পদ্মা সেতু পার না হয় বললেন শাজাহান খান।জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য অনুযায়ী, ভাতাপ্রাপ্ত প্রায় দুই হাজার বীর মুক্তিযোদ্ধার বয়স ৫০–এর নিচে।করোনা আক্রান্ত কনের অভিনব পদ্ধতিতে বিয়ে (ভিডিও)আবাসিক হোটেলে জনপ্রিয় অভিনেত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ।পুলিশে হঠাৎ বড় রদবদল।ইউটিউবে যাত্রা শুরু করছেন মিজানুর রহমান আজহারী।
প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে প্রেমিকার বন্ধুদের মারপিটে এক যুবকের মৃত্যু। আজকের ক্রাইম নিউজ

প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে প্রেমিকার বন্ধুদের মারপিটে এক যুবকের মৃত্যু। আজকের ক্রাইম নিউজ

আজকের ক্রাইম ডেক্স
নওগাঁয় প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে প্রেমিকার বন্ধুদের মারপিটে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

নিহত হামিম হোসেন (২০) নওগাঁ সদর উপজেলার মুরাদপুর গ্রামের শাহাদত হোসেনের ছেলে। হামিম রাজশাহী কলেজের এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। থাকতেন রাজশাহীতেই।
এ ঘটনায় হামিমের বাবা শাহাদত হোসেনের বাদী হয়ে নওগাঁ সদর থানায় মামলা করেন। মামলার পর আসিফ হোসেন সজল (২৯) নামে একজনকে আটক গ্রেফতার পুলিশ।

জানা যায়, গত ৮ ফেব্রুয়ারি প্রেমিকার সাথে দেখা করতে আসেন নওগাঁ সদরে। এসময় ওই প্রেমিকার তিন বন্ধু নওগাঁ মহিলা কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল মোজাম্মেল হকের ছেলে আসিফ হোসেন সজল (২৯), নওগাঁ শহরের দয়ালের মোড়ের মামুনুর রশিদের ছেলে সুরুজ (২৬) ও নওগাঁ শহরের দয়ালের মোড়ের মতিউর রহমানের ছেলে প্রান্ত (২৭) সহ ৪ থেকে ৫ জন হামিমের ওপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে মারপিট করেন। এক পর্যায়ে আসিফ হোসেন সজল হত্যার উদ্দেশে ইট দিয়ে হামিমের মাথায় আঘাত করেন।
হামিমের চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে তারা পালিয়ে যান। পরে স্থানীয়রা গুরুতর আহতাবস্থায় তাকে উদ্ধার করে নওগাঁ সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় চার দিন পর বৃহস্পতিবার সকালে মারা যান।

একমাত্র সন্তানকে হারিয়ে বারবার মূর্ছা যাচ্ছেন হামিমের মা ভেনি আকতার ও বাবা শাহাদত হোসন।। তারা তাদের সন্তানের খুনিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।
নওগাঁ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সোহরাওয়ার্দী হোসেন বলেন, এজাহারভুক্ত ১ নম্বর আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতারের বিষয়ে জোর তৎপরতা চলছে। তাদেরকে দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হবে।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019
Bengali English