রবিবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২১, ০৪:১০ অপরাহ্ন

Notice :
প্রকাশ্যে ধূমপান করে তোপের মুখেপড়া এক তরুণীর ভিডিও ভাইরাল।চরমোনাই পীরের ওয়াজ মাহফিল বাতিল।বিএনপির কোনো নেতাকর্মী যেন পদ্মা সেতু পার না হয় বললেন শাজাহান খান।জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য অনুযায়ী, ভাতাপ্রাপ্ত প্রায় দুই হাজার বীর মুক্তিযোদ্ধার বয়স ৫০–এর নিচে।করোনা আক্রান্ত কনের অভিনব পদ্ধতিতে বিয়ে (ভিডিও)আবাসিক হোটেলে জনপ্রিয় অভিনেত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ।পুলিশে হঠাৎ বড় রদবদল।ইউটিউবে যাত্রা শুরু করছেন মিজানুর রহমান আজহারী।
সর্বশেষ সংবাদ :
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন)বরিশাল মোঃ নাইমুল হক এর পুলিশ সুপার(এস পি) হিসেবে পদোন্নতি। আজকের ক্রাইম-নিউজ বিয়ের জন্য চাপ, প্রেমিকাকে মেরে পুঁতে রাখল প্রেমিক! আজকের ক্রাইম-নিউজ নলছিটি থানার নতুন অফিসার ইনচার্জ মোঃ আলী আহমেদ। আজকের ক্রাইম-নিউজ ঢাকাগামী লঞ্চের ধাক্কায় নারী যাত্রীর পা বিচ্ছিন্ন। আজকের ক্রাইম-নিউজ নৌকার চেয়ে ৯ গুণ বেশি ভোটে জয়ী ধানের শীষ প্রার্থী। আজকের ক্রাইম-নিউজ বিয়ে না করে বেঁচে গেছি: সালমান খান। আজকের ক্রাইম-নিউজ বরিশালে ট্রাক-মোটরসাইকেল সংঘর্ষে প্রাণ গেল বাবা-ছেলের। আজকের ক্রাইম-নিউজ নির্বাচনে বিজয়ী বিএনপি সমর্থিত কাউন্সিলরকে কুপিয়ে হত্যা। আজকের ক্রাইম-নিউজ ছাত্রলীগ নেতার এ কী কাণ্ড: টাকা ভাংতি না পেয়ে ভাঙলেন দোকান! আজকের ক্রাইম-নিউজ এখন প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের বিরোধী শক্তি বলা হচ্ছে : আসিফ নজরুল। আজকের ক্রাইম-নিউজ
একসঙ্গে ৪ সন্তানের জন্ম দিলেন দিনমজুরের স্ত্রী।আজকের ক্রাইম নিউজ ডট কম

একসঙ্গে ৪ সন্তানের জন্ম দিলেন দিনমজুরের স্ত্রী।আজকের ক্রাইম নিউজ ডট কম

সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার উত্তর পারুলিয়া এলাকায় এক দিনমজুরের ঘর আলোকিত করে এসেছে চার সন্তান। এর মধ্যে তিনটি ছেলে সন্তান ও একটি কন্যা সন্তান।

অভাব-অনটনের পরিবারে একসঙ্গে চার সন্তান জন্মগ্রহণ করায় বিপাকে পড়েছেন বাবা শরিফুল ইসলাম। মা রুনা খাতুন ও চার সন্তান সাতক্ষীরা চায়না বাংলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

চার সন্তানের বাবা শরিফুল ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, আমি কৃষিকাজ করে জীবিকা নির্বাহ করি। প্রতিদিনের রোজগারের টাকা দিয়ে আমার সংসার চলে। দুই বছর আগে জগন্নাথপুর গ্রামের আজিবর শেখের মেয়ে রুনা খাতুনের সঙ্গে আমার বিয়ে হয়। বিয়ের পর স্ত্রীর গর্ভে সন্তান আসে।

তিনি আরও বলেন, সোমবার রাত আড়াইটার দিকে সাতক্ষীরার চায়না বাংলা হাসপাতালে স্ত্রীর চার সন্তান প্রসব হয়। এর মধ্যে তিনটি ছেলে সন্তান ও একটি কন্যা সন্তান। বর্তমানে স্ত্রী ও সন্তানগুলো সুস্থ রয়েছে।

চারটি সন্তান একসঙ্গে হওয়ায় একদিকে খুশি হয়েছি অন্যদিকে দিশেহারা। সন্তান ও স্ত্রীর চিকিৎসা ব্যয় বহন করতে হিমশিম খাচ্ছি। প্রতিদিন ২৫ হাজার টাকা করে স্ত্রী-সন্তানদের পেছনে ব্যয় হবে বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এত টাকা জোগাড় করার সাধ্য আমার নেই।

দেবহাটার জগন্নাথপুর গ্রামের রুনা খাতুনের চাচা মজিবার রহমান বলেন, একসঙ্গে চার সন্তান হওয়ায় খুশির পাশাপাশি হতাশা রয়েছে। চিকিৎসা ব্যয় করা সম্ভব হবে না। হৃদয়বান মানুষের সহযোগিতা কামনা করছি।

আশাশুনি উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান অসীম চক্রবর্তী জাগো নিউজকে বলেন, পরিবারটিকে আমি ব্যক্তিগতভাবে চিনি। তারা খুব অসহায়। হৃদয়বান মানুষের সহযোগিতা ছাড়া নবজাতকগুলোকে বাঁচানো সম্ভব নয়।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019
Bengali English