শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ০৮:১৬ পূর্বাহ্ন

Notice :
প্রকাশ্যে ধূমপান করে তোপের মুখেপড়া এক তরুণীর ভিডিও ভাইরাল।চরমোনাই পীরের ওয়াজ মাহফিল বাতিল।বিএনপির কোনো নেতাকর্মী যেন পদ্মা সেতু পার না হয় বললেন শাজাহান খান।জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য অনুযায়ী, ভাতাপ্রাপ্ত প্রায় দুই হাজার বীর মুক্তিযোদ্ধার বয়স ৫০–এর নিচে।করোনা আক্রান্ত কনের অভিনব পদ্ধতিতে বিয়ে (ভিডিও)আবাসিক হোটেলে জনপ্রিয় অভিনেত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ।পুলিশে হঠাৎ বড় রদবদল।ইউটিউবে যাত্রা শুরু করছেন মিজানুর রহমান আজহারী।
পুলিশ সুপার, চুয়াডাঙ্গার প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধায়নে মোছাঃ খাদিজা খাতুন ফিরে পেল তার সুখের সংসার।

পুলিশ সুপার, চুয়াডাঙ্গার প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধায়নে মোছাঃ খাদিজা খাতুন ফিরে পেল তার সুখের সংসার।

আজকের ক্রাইম ডেক্স

মোছাঃ খাদিজা খাতুন (২৫) এর সাথে মোঃ চাঁন মিয়ার (৩২), পিতা-মোঃ খোকন, সাং-শ্রীকোল মন্ডলপাড়া, থানা ও জেলা-চুয়াডাঙ্গার ইসলামী শরিয়া মোতাবেক বিবাহ হয়। দাম্পত্য জীবনে তাদের ০২টি সন্তান রয়েছে।

বিয়ের পর থেকে মোছাঃ খাদিজা খাতুন এর নিকট তার স্বামী মোঃ চাঁন মিয়া যৌতুক দাবী করে আসছে। যার ফলে তাদের মধ্যে ঝগড়া লেগেই থাকতো। একপর্যায়ের গত ০২.০৪.২০২১খ্রিঃ তারিখ মোছাঃ খাদিজা খাতুনকে যৌতুকের দাবীতে তার স্বামী ও তার পরিবারের লোকজন মারপিট করে সন্তানসহ বাড়ী থেকে তাড়িয়ে দেয়। পিতা-মাতাহীন অসহায় খাদিজা খাতুন তার ০২টি সন্তান নিয়ে তার নানা আব্দুর রশিদ, সাং-উজিরপুর, থানা-দামুড়হুদা, জেলা-চুয়াডাঙ্গার বাড়ীতে আশ্রয় নেয়। খাদিজা খাতুন কোথাও কোন সাহায্যের আশ্বাস না পেয়ে অবশেষে স্বামীর সংসার করার জন্য পুলিশ সুপার, চুয়াডাঙ্গার নিকট একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

পুলিশ সুপার, চুয়াডাঙ্গা মহোদয় উক্ত অভিযোগটি তার কার্যালয়ে অবস্থিত “উইমেন সাপোর্ট সেন্টার” এ কর্মরত নারী এএসআই (নিরস্ত্র)/ মিতা রানী বিশ্বাস’কে দিলে তিনি উভয় পক্ষকে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে হাজির করেন। উইমেন সাপোর্ট সেন্টারের মাধ্যমে মানবিক পুলিশ সুপার, চুয়াডাঙ্গা জনাব মোঃ জাহিদুল ইসলাম এর প্রত্যক্ষ মধ্যস্থতায় মোঃ চাঁন মিয়া (৩২) এবং মোছাঃ খাদিজা খাতুন(২৫) দম্পত্তি পুনরায় সংসার করতে সম্মত হয়। ফলে উইমেন সাপোর্ট সেন্টারের কল্যাণে অসহায় খাদিজা ফিরে পেল তার সুখের সংসার।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019
Bengali English