শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ০৮:২৫ পূর্বাহ্ন

Notice :
প্রকাশ্যে ধূমপান করে তোপের মুখেপড়া এক তরুণীর ভিডিও ভাইরাল।চরমোনাই পীরের ওয়াজ মাহফিল বাতিল।বিএনপির কোনো নেতাকর্মী যেন পদ্মা সেতু পার না হয় বললেন শাজাহান খান।জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য অনুযায়ী, ভাতাপ্রাপ্ত প্রায় দুই হাজার বীর মুক্তিযোদ্ধার বয়স ৫০–এর নিচে।করোনা আক্রান্ত কনের অভিনব পদ্ধতিতে বিয়ে (ভিডিও)আবাসিক হোটেলে জনপ্রিয় অভিনেত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ।পুলিশে হঠাৎ বড় রদবদল।ইউটিউবে যাত্রা শুরু করছেন মিজানুর রহমান আজহারী।
সর্বশেষ সংবাদ :
মসজিদে মাস্ক না পরায় সংঘর্ষে আহত ১০। সকালে সন্তান জন্ম দিয়ে বিকেলে করোনায় সংবাদকর্মীর মৃত্যু। জীবননগরে মানব সেবা সংগঠনের উদ্যোগে জায়নামাজ ও তসবিহ বিতরণ। ১৪-আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন কক্সবাজারে(এপিবিএন)এ নতুন অধিনায়ক এ যোগদান। চট্টগ্রামে স্কুলছাত্রীর অশ্লীল ভিডিও ধারণ, শিক্ষক গ্রেফতার। ছেলে অর্থলোভে পাগল সাজিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করলেন বাবাকে। প্রধানমন্ত্রীর পদ নিয়ে সৃষ্ট অন্তঃকলহ স্বাধীনতার প্রশ্নে ভুলে যান জাতীয় চার নেতা। হেফাজত নেতা মাওলানা জুবায়ের গ্রেফতার। উপজেলা চেয়ারম্যানের কিল-ঘুষিতে এক বৃদ্ধের করুণ মৃত্যু। আবর্জনার গাড়িতে নেওয়া হচ্ছে করোনার মৃতদেহ।
খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন তার বোন সেলিনা ইসলাম

খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন তার বোন সেলিনা ইসলাম

অনলাইন ডেস্ক::বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন তার বোন সেলিনা ইসলাম। সোমবার বিকালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে সাক্ষাৎ শেষে তিনি অভিযোগ করেন, খালেদা জিয়ার সর্বশেষ শারীরিক অবস্থা নিয়ে আদালতে পেশ করা মেডিকেল বোর্ডের রিপোর্টের সঙ্গে তার শারীরিক অবস্থার বাস্তবে কোনো মিল নেই।
আর সর্বোচ্চ আদালতে জামিন না পাওয়ার ঘটনাকে ‘নজিরবিহীন’ বলেছেন খালেদা জিয়া। সুপ্রিমকোর্টে জামিন নামঞ্জুরের বিষয়ে খালেদা জিয়ার প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে বোন সেলিনা ইসলাম বলেন, ‘এটা তো নজিরবিহীন।

আমাদের বিশিষ্ট আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেছেন, এটা নজিরবিহীন, এরকম নজির দেখা যায় না। ওনার বয়স, ওনার অসুস্থতা- এসব বিষয়ে বিবেচনা করে জামিন হওয়া উচিত ছিল।
জামিন মানে ছেড়ে দেয়া না, জামিন মানে মুক্তি না। সে জামিনে থাকবে। জামিন তো দিতেই পারত। জামিন তো দিলেন না ওনারা। একই রকম মন্তব্য খালেদা জিয়ারও। নজিরবিহীন বলেছেন উনি।’

সেলিনা ইসলাম বলেন, ‘খালেদা জিয়ার শরীর খুবই খারাপ। ওঠাবসা কিছুই করতে পারছে না। খেতে পারছে না। খেলেই বমি হয়ে যাচ্ছে। পেটে ব্যথা হচ্ছে। এত অসুস্থ মানুষ, এত বয়স হয়ে গেছে তার। সে তো হাঁটাচলা করতে পারছে না, বসতে পারছে না।’

তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়ার ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে নেই। সুগার ১২ এর নিচে কখনই আসে না। ১৪ থেকে ১৫ পর্যন্ত সব সময় থাকে। আজ ১৫ আছে। এই রকম অসুস্থতায় তার উন্নত চিকিৎসা দরকার। আমরা তো বলেছিলাম। ওনারা জামিন তো দিলেন না। আমরা কী করব।’

বিএসএমএমইউতে বোনের ঠিকমতো চিকিৎসা হচ্ছে না অভিযোগ করে সেলিনা ইসলাম বলেন, ‘তার (খালেদা জিয়া) পেটে ব্যথা হচ্ছে। ডাক্তার ওষুধ দিচ্ছে না। এখানে ঠিকমতো তার চিকিৎসা হচ্ছে না। এখানে কীভাবে সে বাঁচবে?’ তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়া দোয়া করতে বলেছেন দেশবাসীকে। এছাড়া আমাদের কী করার আছে?’

প্যারোল নিয়ে কোনো কথা হয়েছে কি না- জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘না, এরকম কোনো কথা হয়নি।’

বিকাল ৩টার দিকে বিএসএমএমইউ হাসপাতালের কেবিন ব্লকে বন্দি খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যান পরিবারের সদস্যরা। এক ঘণ্টারও বেশি সময় তারা সেখানে অবস্থান করেন।

পরিবারের সদস্যরা হলেন- খালেদা জিয়ার বোন সেলিনা ইসলাম, তার স্বামী অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম, ছোট ভাই শামীম এস্কান্দার, তার স্ত্রী কানিজ ফাতেমা ও তার ছেলে অভিক এস্কান্দার।

শনিবার পরিবারের সদস্যদের দেখা করার কথা ছিল। অনিবার্য কারণে কারা কর্তৃপক্ষ তাৎক্ষণিক সাক্ষাতের অনুমতি বাতিল করে। সর্বশেষ ১৩ নভেম্বর বিএসএমএমইউতে খালেদা জিয়ার সঙ্গে তার পরিবারের সদস্যরা সাক্ষাৎ করেন।

১ এপ্রিল থেকে অসুস্থ হয়ে খালেদা জিয়া বিএসএমএমইউর ৬২১ নম্বর কেবিনে চিকিৎসাধীন আছেন।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019
Bengali English