২৩ Jul ২০২৪, ০৫:২২ অপরাহ্ন, ১৬ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি, মঙ্গলবার, ৮ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নোটিশ
জরুরী ভিত্তিতে কিছুসংখ্যক জেলা-উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে যোগাযোগ- ০১৭১২৫৭৩৯৭৮
কে এম পি খালিশপুর থানা পুলিশের অভিযানে অনলাইন ডিজিটালাইজড প্রতারক চক্রের ২সক্রিয় সদস্য গ্রেপ্তার।

কে এম পি খালিশপুর থানা পুলিশের অভিযানে অনলাইন ডিজিটালাইজড প্রতারক চক্রের ২সক্রিয় সদস্য গ্রেপ্তার।

খুলনা থেকে নিজস্ব প্রতিবেদক ইমরান জামান কাজল।

আজ ২৫ /৪/২০২৪ইংরেজি তারিখ সকাল ১১:৪৫ঘটিকায় খুলনা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রিসি আদালত( ২) এ উক্ত দুই যুবকের ভার্চুয়াল ডিজিটাল মার্কেটিং বিজনেস সিস্টেমের আড়ালে চলা বিটকয়েন নামক ক্রিপ্টোকারেন্সি।যা বাংলাদেশ সরকারের অবৈধ একটি ভার্চুয়াল বিজনেস সিস্টেম। এই সিস্টেমের আড়ালে তারা মূলত বাংলাদেশের মুদ্রা পাচার সহ মানুষকে প্রতারণা করাই মূল লক্ষ্য ছিল উক্ত দুই যুবকের। যার কারণে আজ উক্ত দুই যুবকের বিচারিক কার্যক্রম পরিচালনার জন্য উক্ত দুই যুবককে বিচারকের এজলাশে হাজির করা হয় ।এবং এদের সঙ্গে আরো জড়িত থাকা অন্যান্য সদস্যদের নাম উদঘাটন করার জন্য উক্ত দুই যুবকের বিপক্ষে রিমান্ড চাই সরকার পক্ষের আইনজীবী এবং তা মঞ্জুর হয়।

গত ২৩/০৪/২০২৪ খ্রিঃ খালিশপুর থানা পুলিশের একটি বিশেষ টিম থানা এলাকায় হোন্ডা মোবাইল-৫ ডিউটি করাকালে উক্ত থানাধীন লিবার্টি মোড়ে অবস্থান করাকালীন রাত ২২.৩০ ঘটিকার সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে উক্ত থানাধীন খালিশপুর আবাসিক রোড নং-১৭১, বাড়ী নং-বি/১৭ ইসরাত জাহানের ৩য় তলা ভবনের নিচ তলার কক্ষে ০২ (দুই) জন ব্যক্তি বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক অনুমোদনবিহীন অবৈধ BIT COIN নামক ভার্চুয়াল মুদ্রা (ক্রিপ্টোকারেন্সি) এর মাধ্যমে দীর্ঘদিন যাবত প্রতারণা করে আসছে।

সাধারণ লোকজনের টাকা হাতিয়ে নিয়ে আসছে এবং বর্তমানে উক্ত ব্যক্তিদ্বয় তাদের অফিস কক্ষে অবস্থান করছে। উক্ত সংবদের ভিত্তিতে তাৎক্ষণিকভাবে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা মোতাবেক সঙ্গীয় অফিসার ও ফোর্সসহ ২৩ এপ্রিল ২০২৪ খ্রিঃ রাত ২২.৪৫ ঘটিকার সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে

১) মোঃ শিহাব উদ্দিন শিবলু (২৭), পিতা-মোঃ মনির উদ্দিন, সাং-টি/৮৩, রোড নং-১৬৪ হাউজিং এস্টেট, থানাখালিশপুর এবং

২) মোঃ সাব্বির হোসেন (২২), পিতা-আব্দুল জলিল সানা, সাং-গাবুরা ২নং ওয়ার্ড, থানা-শ্যামনগর, জেলা-সাতক্ষীরা, এ/পি সাং-খালিশপুর আবাসিক রোড নং-১৭১, বাসা নং-বি/১৭, খালিশপুর, খুলনা মহানগরীদ্বয়’কে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃত আসামীদের হেফাজত হতে অনুমোদনবিহীন অবৈধ BIT COIN নামক ভার্চুয়াল মুদ্রা (ক্রিপ্টোকারেন্সি) এর মাধ্যমে প্রতারণায় ব্যবহৃত বিভিন্ন ব্রান্ডের ০৫ টি কম্পিউটার, ০৫ টি মোবাইল ফোন, ০৪ টি পেনড্রাইভ, ১৭ টি সিম কার্ড, ০২ টি আইডি কার্ড, ০১ সিসি টিভি ক্যামেরা, ০১ টি ডাচ্ বাংলা ব্যাংকের এটিএম কার্ড, Nons.Com সাইটের BIT COIN লেনদেন সংক্রান্ত কাগজপত্র ০২ পাতা, BIT COIN ওয়ালেট থেকে বিকাশ ও নগদ একাউন্টে লেনদেনে ব্যবহৃত সিম কার্ড নিরপেক্ষ সাক্ষীদের উপস্থিতিতে উদ্ধারপূর্বক জব্দ করা হয়।

প্রাথমিক তদন্তে জানা যায় যে, গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয় এইচ এস সি পাশ করার পর ২০২১ সাল হতে Expart Deal নাম দিয়ে অনলাইন আউট সোর্সিং ব্যবসা শুরু করে।

পরবর্তীতে অনলাইন আউট সোর্সিং ব্যবসার আড়ালে BIT COIN ও অনলাইনে বিভিন্ন প্রতারণার ডিজিটাল জালিয়াতির ফাঁদ তৈরি করে দীর্ঘ দিন যাবত তাদের অবৈধ কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিল।

গ্রেফতারকৃত আসমীদ্বয় অন্যান্য অজ্ঞাতনামা সহযোগী আসামীদের সহযোগিতায় বাংলাদেশেসহ পাকিস্তান, নাইজেরিয়া, দুবাই এর ক্রেডিট কার্ড হ্যাকারদের সহযোগিতায় অননুমোদিত অবৈধ BIT COIN নামক ভার্চুয়াল মুদ্রা (ক্রিপ্টোকারেন্সি) এর মাধ্যমে পাচারকারীদের সাথে আঁতাত করে। প্রতারণা ও ডিজিটাল জালিয়াতি করতো।

Expart Deal নামক প্রতিষ্ঠানটি শুরুতে তাদের একটি ছোট অফিস থাকলেও আস্তে আস্তে বড় পরিসরে ০৩ টি শিফটে ২৪ ঘন্টা অফিস খোলা রেখে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছিল। গ্রেফতারকৃত আসামী শিহাব উদ্দিন শিবলু এবং সাব্বির হোসেন অন্য দেশের কাছে নিজেদেরকে Online Activist পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন দেশের Client দের সাথে অননুমোদিত অবৈধ ভার্চুয়াল ব্যবসার মাধ্যমে একাধিক ব্যাংকে অবৈধ BIT COIN নামক ভার্চুয়াল মুদ্রা (ক্রিপ্টোকারেন্সি) এর মাধ্যমে প্রতারণামূলকভাবে ডিজিটাল জালিয়াতি করে।

একাধিক ব্যাংক একাউন্ট ব্যবহার করে বিপুল পরিমাণ (৩০ লক্ষ ডলার) অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা আরো জানায় যে, তাদের একাধিক ভার্চুয়াল ওয়ালেটে BIT COIN এর মাধ্যমে অর্জিত লক্ষাধিক ডলার মজুদ রয়েছে। তারা বিভিন্ন দেশি-বিদেশী ও ই-মার্কেটিং আকর্ষণীয় মূল্যের বিজ্ঞাপন করত এবং পরবর্তীতে সেখান থেকে ডিজিটাল জালিয়াতির মাধ্যমে অর্থ আত্মসাৎ করতো। এছাড়াও তারা দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে জুয়াড়ীদের নিকট BIT COIN বিপনন করতো।

ঘটনাস্থানে গিয়ে আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদকের সঙ্গে কথা একজন স্থানীয় বাসিন্দা মোহাম্মদ বাদশা (৪৭)। সে ঘটনা সম্পর্কে বর্ণনা করে বলে যে, এই দুটি এই দুটি যুবক কখনোই তারা কোন কাজ কাম করত না, সারাক্ষণ শুধু কম্পিউটারের সামনে বসে থাকতো। কিন্তু তাদের পকেট সব সময় টাকায় ভরে থাকতো। এই দুই যুবকের কাছে জিজ্ঞেস করলে বলতো তারা, অনলাইন ডিজিটাল মার্কেটিং সিস্টেমে কি ব্যবসা করে। এবং এই ব্যবসা থেকে অর্জিত রায় তারা খরচ করে। আমরা তো আসলে অনলাইন ডিজিটাল মার্কেটিং সিস্টেম কি জিনিস তা তো আমরা বুঝিনা, এই কারণে যুবক দুটির দীর্ঘদিন যাবত এই এলাকায় থেকে এ ধরনের অবৈধ কর্মকান্ড পরিচালনা করে আসতে পারছে। তাদের আসলে অনলাইন মার্কেটিং সিস্টেমের আড়ালে মূলত ছিল মানুষকে প্রতারিত করে তাদের অর্থ এই ডিজিটাল মার্কেটিং সিস্টেমের মাধ্যমে লুট করা।

উক্ত দুই যুবককে গতকাল ২৪/৪/২০২৪ইংরেজি তারিখে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

এই ঘটনায় গ্রেফতারকৃত আসামী ১) মোঃ শিহাব উদ্দিন শিবলু (২৭) এবং ২) মোঃ সাব্বির হোসেন (২২) সহ পলাতক অজ্ঞাতনামা ৩/৪ জন আসামীর বিরুদ্ধে অনলাইনে প্রতারণা ও ডিজিটাল জালিয়াতি কার্যক্রম পরিচালনা করার অপরাধে সাইবার নিরাপত্তা আইন ২০২৩ এর ১৭/২২/২৩ ধারা তৎসহ পেনাল কোডের ৪৬৫ ধারায় খালিশপুর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয়কে জিজ্ঞাসাবাদ চলমান রয়েছে, পুলিশ রিমান্ডে এনে অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদ করে অবৈধ BIT COIN বিপনন কার্যক্রম এবং অনলাইনে প্রতারণা ও ডিজিটাল জালিয়াতি কার্যক্রমে কারা জড়িত তার মূল রহস্য উদঘাটন করে এই প্রক্রিয়ায় যারা জড়িত আছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019