২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:১০ অপরাহ্ন, ১২ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি, শুক্রবার, ১০ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নোটিশ
জরুরী ভিত্তিতে কিছুসংখ্যক জেলা-উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে যোগাযোগ- ০১৭১২৫৭৩৯৭৮
সর্বশেষ সংবাদ :
মায়ের জানাজায় অংশ নিতে ফিরলেন ইতালি থেকে, সড়কে ঝরল প্রাণ অনিবন্ধিত সব স্বাস্থ্যকেন্দ্র দ্রুত বন্ধ করা হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঝালকাঠি’তে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) এর উদ্যোগে প্রতিনিধি সভা অনুষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় বিএমপি কমিশনার এর অংশগ্রহণ বিরামপুর খানপুর ইউনিয়নে স্বল্প মূল্যে টিসিবির পন্য বিতরনের শুভ উদ্বোধন দামুড়হুদার কুড়ুলগাছি শিক্ষক – অভিভাবক সমাবেশ সকলকে সমন্বয়ের মাধ্যমে শিক্ষার মান উন্নয়নে কাজ করতে হবে, -জেলা প্রশাসক তেল-গ্যাস উত্তোলনে বিদেশিদের বিনিয়োগের আহ্বান জানালেন প্রধানমন্ত্রী প্রতারণার অভিযোগে স্বামীসহ যুব মহিলা লীগ নেত্রী মিম গ্রেপ্তার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত জিকে শামীমের জামিন বাংলাবান্ধা-পঞ্চগড় মহাসড়কে বালু-পাথর ব্যবসা লোড আনলোডে জনদূভোর্গ সড়ক দূর্ঘটনা আশংকা
ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের কারণে নৌবাহিনীর চারটি জাহাজ প্রস্তুত রাখা হয়েছে । আজকের ক্রাইম নিউজ

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের কারণে নৌবাহিনীর চারটি জাহাজ প্রস্তুত রাখা হয়েছে । আজকের ক্রাইম নিউজ

মোংলা প্রতিনিধিঃ
ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে উপকূলীয় মোংলা বন্দরে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত জারি করা হয়েছে। মোংলা বন্দরে অবস্থানরত দেশি-বিদেশি ১৪ জাহাজকে নিরাপদে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। রাতেই সভা করে বন্ধ রাখা হয়েছে বন্দরের কার্যক্রম।
এদিকে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে শনিবার সকাল থেকে বৃষ্টির তীব্রতা বাড়তে শুরু করেছে। গতকাল শুক্রবার থেকে গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টি হলেও শনিবার বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভারি বৃষ্টিপাত হচ্ছে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া মানুষ বাড়ির বাইরে যাচ্ছে না।

অপরদিকে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের কারণে সৃষ্ট দুর্যোগে উদ্ধার তৎপরতা চালাতে নৌবাহিনীর চারটি জাহাজ প্রস্তুত রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন খুলনা নৌবাহিনীর কমান্ডার রিয়াল অ্যাডমিরাল আবু মুছা। একই সঙ্গে কোস্টগার্ডও সুন্দরবন উপকূলের ১০টি পয়েন্টে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছে। ইতোমধ্যে দুবলার চরে রাস মেলায় থাকা পর্যটকদের ফিরিয়ে আনা হয়েছে।

শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় বাগেরহাটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. কামরুল ইসলাম জানান, রাতেই উপকূলীয় এলাকার জনসাধারণকে মাইকিং করে আশ্রয় কেন্দ্র আসার আহ্বান জানানো হয়েছে। তবে সকাল পর্যন্ত কেউই আশ্রয় কেন্দ্র আসেননি। বিশেষ করে শরণখোলা ও মোংলার উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের দ্র্রুত সময়ের মধ্যে উপকূলের মানুষকে আশ্রয়কেন্দ্রে আনার ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) মো. মাহমুদুল হাসান জানান ঝড় ও জলোচ্ছ্বাস মোকাবেলায় সুন্দরবনের সকল কর্মকর্তা ও বনরক্ষীদের নিরাপদে থেকে বন্যপ্রাণী রক্ষায় কাজ করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ের কারণে রাস পূর্ণিমাকে সামনে রেখে ১০ নভেম্বর থেকে সুন্দরবনের আলোরকোলে শুরু হতে যাওয়া ৩ দিনব্যাপী রাস উৎসব বন্ধ ঘোষণা করে সেখানে থাকা পর্যটকদের কোস্টগার্ডের সহায়তায় ফিরিয়ে আনা হয়েছে। মাইকিং করে সুন্দরবনে ঢুকতে নিষেধ করা হচ্ছে

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019