২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০২:১৩ অপরাহ্ন, ১৮ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি, বৃহস্পতিবার, ১৬ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নোটিশ
জরুরী ভিত্তিতে কিছুসংখ্যক জেলা-উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে যোগাযোগ- ০১৭১২৫৭৩৯৭৮
সর্বশেষ সংবাদ :
হিজাব না পরায় ৯ ছাত্রীর চুল কেটে দিলেন শিক্ষিকা বাউফলে অনুমোদন ছাড়াই ক্লিনিক চালানো সেই ভুয়া ডাক্তার কারাগারে পুলিশ সদস্যের হাতে মাদক দেখলেই চাকরি যাবে: আইজিপি বাড়িতে বাবার লাশ এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রে মেয়ে তেঁতুলিয়ায় আওয়ামী লীগ নেতার মৃত্যু সুন্দরগঞ্জের বামনডাঙ্গায় ৪ পুলিশ হত্যা দিবস পালিত ঝালকাঠিতে ভোক্তা অধিকারের অভিযান দুটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ২৮ হাজার টাকা জরিমানা গৌরনদী কাঁঠালতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত দর্শনা থানার ২য় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী আজ, ৪ বছরে ৪ ওসি মাদকাসক্ত ছেলেকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে দিলেন বাবা ফেসবুকে কমেন্ট করায় যুবক খুন
পাকিস্তানে থানায় সন্ত্রাসী হামলা, নিহত ১০ পুলিশ

পাকিস্তানে থানায় সন্ত্রাসী হামলা, নিহত ১০ পুলিশ

অনলাইন ডেস্ক

পাকিস্তানের খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশের দেরা ইসমাইল খান জেলার একটি থানায় সন্ত্রাসী হামলায় অন্তত ১০ পুলিশ সদস্য নিহত এবং ছয়জন আহত হয়েছেন। গতকাল রোববার রাত ৩টার দিকে জেলার তহসিল দারাবন এলাকার একটি থানায় এই সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। খবর জিও নিউজের।

এমন এক সময়ে এই হামলার ঘটনা ঘটল যখন পাকিস্তানজুড়ে নির্বাচনী হাওয়া বইছে। আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি দেশটিতে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট অনুষ্ঠিত হবে। তবে এই নির্বাচনে দেশের প্রধান বিরোধী নেতা ইমরান খান ও তার দল পিটিআইকে অংশ নিতে দেওয়া হয়নি।

পুলিশ জানিয়েছে, রাত ৩টার দিকে তহসিল দারাবনে সন্ত্রাসীরা ভারী অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে থানায় হামলা চালায়। সন্ত্রাসীরা চারদিক থেকে গ্রেনেড ও ভারী অস্ত্র নিয়ে থানায় হামলা করেছে। পুলিশ পাল্টা জবাব দিলে সন্ত্রাসীরা রাতের অন্ধকারে পালিয়ে যায়। আহত পুলিশ সদস্যদের জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

হামলার পরপর এলাকাটি ঘেরাও করে সন্ত্রাসীদের খুঁজে তল্লাশি অভিযানে নেমেছে পুলিশ। এ ছাড়া থানা পুলিশ সদস্যদের সহায়তায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

পাকিস্তানের নিরাপত্তা পরিস্থিতি মোটেও ভালো না। ২০১৫ সালের পর সদ্য বিদায়ী ২০২৩ সালে সবচেয়ে বেশি সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। এমনকি নির্বাচন পূর্ববর্তী সহিংসতায় বেশ কয়েকজন সংসদ সদস্য প্রার্থী প্রাণ হারিয়েছেন। দেশের এমন ভয়াবহ নিরাপত্তা পরিস্থিতি কথা উল্লেখ করে নির্বাচন পেছাতে সংসদের উচ্চকক্ষ সিনেটে প্রস্তাব পর্যন্ত পাস হয়েছে। যদিও এই প্রস্তাব মেনে নির্বাচন পেছানোর কোনো আইনি বাধ্যবাধকতা নেই। অবশ্য নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ করতে সেনাবাহিনী মোতায়েন করার কথা জানিয়েছে সরকার।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019