১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:১৪ পূর্বাহ্ন, ৩রা শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি, শনিবার, ৩০শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নোটিশ
জরুরী ভিত্তিতে কিছুসংখ্যক জেলা-উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে যোগাযোগ- ০১৭১২৫৭৩৯৭৮
সর্বশেষ সংবাদ :
ঈদের দিন স্ত্রী-সন্তানকে মাংস কিনে খাওয়াতে না পারায় চিরকুট লিখে আত্মহত্যা বানারীপাড়ায় সাকুরা পরিবহনের চাপায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা জানান আগৈলঝাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আলম চাঁদ বৈসাবির রঙ লেগেছে পাহাড়ে হ্রদের জলে ভাসানো হলো রঙ-বেরঙের ফুল দর্শনায় ঈদের দিন মোটরসাইকেলের পাল্লাপাল্লিতে কিশোরের মৃত্যু ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই ইসরায়েলে ইরানের হামলা রাজধানীতে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে পাহাড়ি প্রাণের উৎসব বৈসাবি পালিত এলাকায় মসজিদ ছিল না, জমি কিনে মসজিদ বানালেন সবজি বিক্রেতা ঈদের দিন পাহাড়ে ঘুরতে এসে প্রাণ গেল তিন বন্ধুর ইতিহাসের সবচেয়ে ভয়ঙ্কর বিমান দুর্ঘটনা, রানওয়েতে পুড়ে মৃত্যু হয় ৫৮৩ জনের
বাড়িতে বাবার লাশ এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রে মেয়ে তেঁতুলিয়ায় আওয়ামী লীগ নেতার মৃত্যু

বাড়িতে বাবার লাশ এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রে মেয়ে তেঁতুলিয়ায় আওয়ামী লীগ নেতার মৃত্যু

তেঁতুলিয়া (পঞ্চগড়) প্রতিনিধিঃ তেঁতুলিয়ায় বাড়িতে বাবার লাশ রেখে এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রে মেয়ে হুমায়রা ইয়াসমিন হিমু। বুধবার সকালে শোকার্ত হৃদয়ে বাবার লাশ বাড়িতে রেখে পরীক্ষা কেন্দ্রে গিয়ে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। গত মঙ্গলবার রাতে উপজেলার শালবাহান ইউনিয়নের কালান্দিগঞ্জ পত্নীপাড়ার বাসিন্দা এসএসসি পরীক্ষার্থী হিমুর বাবা আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল হাকিম (৪৮) মারা যান। বুধবার দুপুর আড়াইটার দিকে তার বাবার দাফন সম্পন্ন হয়।

পারিবারিক ও স্থানীয় সূত্র জানায়, মঙ্গলবার রাতে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও আওয়ামী লীগের সহ-দফতর সম্পাদক আব্দুল হাকিম চৌরাস্তা বাজারে ভ্যান শ্রমিক সমিতির একটি অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছিলেন। বক্তব্য শেষে দোকানে চা খাওয়ার পর বুকের ব্যথা অনুভব করলে তাৎক্ষণিক তাকে সহকর্মীরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিয়তি মেনে নিয়ে বাবার লাশ বাড়িতে রেখে চোখের জলে হিমুকে যেতে হয় পরীক্ষা কেন্দ্রে।

হিমুর বাবা আব্দুল হাকিম রাজনীতিতে তেঁতুলিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক ও আওয়ামীলীগের সহ-দফতর সম্পাদক ছিলেন।

হুমায়রা ইয়াসমিন হিমু কাজী শাহাবুদ্দিন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের এসএসসি পরীক্ষা। দুই ভাই বোনের মধ্যে সেই ছোট। বড় ভাই জাহিদ হাসান জনি রাজশাহী ইউনিভার্সিটিতে ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিষয়ে পড়ালেখা করছে।

হিমুর দুই বান্ধবী হাবিবা আক্তার রুম্পা ও হাবিবা আক্তার জানায়, বাবার মৃত্যুতে হিমু মানসিকভাবে ভেঙে পড়ে। পরীক্ষা দিতে চাইছিল না। কিন্তু পরীক্ষা না দিলে ফল অকৃতকার্য হবে। তাই বাবার লাশ বাড়িতে রেখে পরীক্ষার হলে নিয়ে আসা হয় তাকে।

শালবাহান ইউপি চেয়ারম্যান আশরাফুল ইসলাম বলেন, হিমুর বাবা আব্দুল হাকিমের মৃত্যুটা অত্যন্ত বেদনার। তার মধ্যে মেয়ের পরীক্ষা। একদিকে বাবা হারানো বেদনা, অন্যদিকে সকালে এসএসসি পরীক্ষা। বাড়িতে বাবার লাশ রেখে কষ্ট চেপে পরীক্ষায় অংশ নেয় হিমু। আমি তার প্রতি সমবেদনা জানাই। আল্লাহ তাকে ধৈর্য ধারণের ক্ষমতা দিক। সে যেন ধৈর্য ধারণ করে স্বাভাবিক হয়ে পড়ালেখা করে সামনে এগিয়ে যেতে পারে সে কামনা করি।

উপজেলা শিক্ষা অফিসার শওকত আলী বলেন, এসএসসি পরীক্ষার্থী হুমায়রা ইয়াসমিন হিমুর বাবার মৃত্যুর বিষয়টি আমরা পরীক্ষা কেন্দ্রে আসার পর জানতে পেরেছি। পরীক্ষা দেয়ার সময় কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে। কোন মতে পরীক্ষা শেষ করে বাড়ি চলে যায়। আমরা চেয়েছিলাম সে সবার সঙ্গে স্বাভাবিকভাবেই পরীক্ষা দিক।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019