২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:৫৬ অপরাহ্ন, ১৮ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি, বৃহস্পতিবার, ১৬ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নোটিশ
জরুরী ভিত্তিতে কিছুসংখ্যক জেলা-উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে যোগাযোগ- ০১৭১২৫৭৩৯৭৮
সর্বশেষ সংবাদ :
হিজাব না পরায় ৯ ছাত্রীর চুল কেটে দিলেন শিক্ষিকা বাউফলে অনুমোদন ছাড়াই ক্লিনিক চালানো সেই ভুয়া ডাক্তার কারাগারে পুলিশ সদস্যের হাতে মাদক দেখলেই চাকরি যাবে: আইজিপি বাড়িতে বাবার লাশ এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রে মেয়ে তেঁতুলিয়ায় আওয়ামী লীগ নেতার মৃত্যু সুন্দরগঞ্জের বামনডাঙ্গায় ৪ পুলিশ হত্যা দিবস পালিত ঝালকাঠিতে ভোক্তা অধিকারের অভিযান দুটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ২৮ হাজার টাকা জরিমানা গৌরনদী কাঁঠালতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত দর্শনা থানার ২য় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী আজ, ৪ বছরে ৪ ওসি মাদকাসক্ত ছেলেকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে দিলেন বাবা ফেসবুকে কমেন্ট করায় যুবক খুন
তেঁতুলিয়া সাব-রেজিস্ট্রিারের অনিয়ম দূর্নীতির বিরুদ্ধে দলিল লেখকদের কর্মবিরতি পালন

তেঁতুলিয়া সাব-রেজিস্ট্রিারের অনিয়ম দূর্নীতির বিরুদ্ধে দলিল লেখকদের কর্মবিরতি পালন

তেঁতুলিয়া (পঞ্চগড়) প্রতিনিধিঃ তেঁতুলিয়া সাব রেজিস্ট্রিারের অনিয়ম দূর্নীতির বিরুদ্ধে দলিল লেখকদের কর্মবিরতি পালন করেছে দলিল লেখক সমিতি। এতে প্রায় কোটি টাকার রাজ্স্ব থেকে বঞ্চিত সরকার।
বুধবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত দলিল লেখক সমিতির ডাকে সাব রেজিস্ট্রি অফিসে দলিল লেখকরা কর্মবিরতি পালন করেন। এসময় দলিল লেখক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক আজগর আলী এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন তেঁতুলিয়া সাব- রেজিষ্ট্রি অফিসের দায়িত্বরত সাব- রেজিস্ট্রার সিরাজুল ইসলাম দাপ্তরিক প্রশিক্ষনে ঢাকা যায়। তার অনুপস্থিতিতে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করার জন্য আটোয়ারী সাব- রেজিস্ট্রার মিজানুর রহমানকে তেঁতুলিয়ার সাব রেজিস্ট্রার হিসেবে দায়িত্ব দেয়া হয়।
তিনি তেঁতুলিয়া সাব-রেজিস্ট্রার অফিসে দ্বায়িত্ব পালন কালে কর্তব্যরত দলিল লেখকগনকে বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে হয়রানি করে অতিরিক্ত টাকাও দাবি করেন তিনি। অতিরিক্ত টাকা দিতে অস্বীকার করায় বিভিন্ন সময় হয়রানির স্বীকার হন দলিল লেখকরা। এহেন হয়রানির প্রতিবাদে দলিল লেখক সমিতি অনির্দৃষ্টকালের জন্য দলিল লেখা বন্ধ ঘোষণা করেন। আনিত সমস্যা সমাধান না হওয়া পর্যন্ত দলিল লেখা বন্ধ থাকবে বলে জানান সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ও দলিল লেখক আব্দুল করিম। অন্যান্য দলিল লেখকরা জানান পিতা- মাতা হতে প্রাপ্ত সম্পত্তি সাফ-কাবলা করতে হবে, অতিরিক্ত কোন ফি দেওয়া হবে না এবং সময়মত অফিসে আগমন নিশ্চিত করাসহ হয়রানি বন্ধ করলে পূর্বের ন্যায় ক্রেতা ও বিক্রেতাদের নিয়ে দলিল উপস্থাপন করা হবে। আজ দলিল লেখা বন্ধ হওয়ায় সরকার প্রায় কোটি টাকা রাজস্ব হারিয়েছে।
এব্যাপারে সাব-রেজিষ্ট্রার মিজানুর রহমানের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, অফিস চলাকালীন সময়ে কোন অতিরিক্ত ফি নেয়া হয় না। অন্যান্য অভিযোগের বিষয়ে তিনি বলেন সরকারের বেধে দেয়া নিয়ম কানুন বাস্তবায়নের চেষ্টা করছি মাত্র।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019