২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৪:০০ অপরাহ্ন, ১৮ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি, বৃহস্পতিবার, ১৬ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নোটিশ
জরুরী ভিত্তিতে কিছুসংখ্যক জেলা-উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে যোগাযোগ- ০১৭১২৫৭৩৯৭৮
সর্বশেষ সংবাদ :
হিজাব না পরায় ৯ ছাত্রীর চুল কেটে দিলেন শিক্ষিকা বাউফলে অনুমোদন ছাড়াই ক্লিনিক চালানো সেই ভুয়া ডাক্তার কারাগারে পুলিশ সদস্যের হাতে মাদক দেখলেই চাকরি যাবে: আইজিপি বাড়িতে বাবার লাশ এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রে মেয়ে তেঁতুলিয়ায় আওয়ামী লীগ নেতার মৃত্যু সুন্দরগঞ্জের বামনডাঙ্গায় ৪ পুলিশ হত্যা দিবস পালিত ঝালকাঠিতে ভোক্তা অধিকারের অভিযান দুটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ২৮ হাজার টাকা জরিমানা গৌরনদী কাঁঠালতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত দর্শনা থানার ২য় প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী আজ, ৪ বছরে ৪ ওসি মাদকাসক্ত ছেলেকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে দিলেন বাবা ফেসবুকে কমেন্ট করায় যুবক খুন
অবসরে যাওয়ার কথা শুনে কাঁদলেন শিক্ষক শিক্ষার্থীরা ,ছুটে এলেন প্রাক্তন শিক্ষার্থীরাও

অবসরে যাওয়ার কথা শুনে কাঁদলেন শিক্ষক শিক্ষার্থীরা ,ছুটে এলেন প্রাক্তন শিক্ষার্থীরাও

মোঃ মনির হোসেন ঝালকাঠি : ঝালকাঠির জনপ্রিয় শিক্ষক মোঃ তৌহিদ হোসেন খান ১৯ শে সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার ঝালকাঠি হরচন্দ্র বালিকা বিদ্যালয় থেকে অবসরে চলে গেলেন। স্কুলের শিক্ষার্থীরা কেঁদে ফুলের শুভেচ্ছা দিয়ে ব্যান্ড বাজিয়ে প্রিয় শিক্ষককে বিদায় দিলেন। বিদায় বেলা শিক্ষাঙ্গনের শিক্ষকদের ও দুচোখ ভিজেছিল কান্নার পানিতে। প্রিয় শিক্ষকের অবসরে যাওয়ার কথা শুনে ছুটে এসেছেন প্রাক্তন শিক্ষার্থীরাও।
ঝালকাঠি হরচন্দ্র বালিকা বিদ্যালয় থেকে বিদায় নেওয়ার পরে সেখান থেকে প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা স্যারকে নিয়ে আসেন ঝালকাঠি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে।
মাঠে এক প্রীতি ফুটবল ম্যাচের আয়োজন করে শিক্ষার্থীরা সেখানে রেফারির দায়িত্ব পালন করেন মোঃ তৌহিদ হোসেন খান।
শিক্ষার্থীরা বলেন স্যার যখন প্রথম চাকুরী জীবনে ঝালকাঠি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় আসেন সেই থেকে স্কুলের খেলার মান অনেক ভালো হয়েছে বিভিন্ন পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন রানার চাপ হয়েছে আমাদের স্কুল।
স্যারের মতো একজন সৎ যোগ্যতা সম্পন্ন শিক্ষক হয়তো আর আসবেনা।

শিক্ষক তৌহিদ হোসেন খান বলেন আমি চাকুরীজীবনে প্রথম ১৯৯২ সালে ঝালকাঠি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় যোগদান করি। সেই থেকে ফুটবল ,হ্যান্ডবল, ক্রিকেট খেলায় অনেক পুরস্কার অর্জন করেছে স্কুলের শিক্ষার্থীরা। আজ আমি গর্বিত এত শিক্ষার্থী আমাকে ভালবাসে আমার অবসরের খবর শুনে সবাই ছুটে এসেছেন আমাকে ফুল দিয়ে বরণ করে নিয়েছে।
আমি সারা জীবন তোমাদের মাঝে বেঁচে থাকতে চাই।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019