২২ Jun ২০২৪, ১১:০২ অপরাহ্ন, ১৫ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি, শনিবার, ৮ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নোটিশ
জরুরী ভিত্তিতে কিছুসংখ্যক জেলা-উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে যোগাযোগ- ০১৭১২৫৭৩৯৭৮
সর্বশেষ সংবাদ :
বাবুগঞ্জে নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান ফারজানা বিনতে ওহাব কে সংবর্ধনা বরগুনার আমতলীতে ব্রিজ ভেঙে মাইক্রোবাস খালে পড়ে ১০ বরযাত্রী নিহত দামুড়হুদায় সাপের কামড়ে শিশুর মৃত্যু দর্শনায় ৮০ পিস ট্যাপেন্টাডল ট্যাবলেটসহ সাগর গ্রেফতার সময় টেলিভিশনের পরিচয়ে প্রতারণা,র অভিযোগে প্রতারক রেজাউল সরদারকে ডিবি পুলিশ আটক করে বরিশালে বেকারীর গোডাউন থেকে সরকারি চাল উদ্ধার নলছিটির ফুয়াদ কাজী হত্যার কিলার মিজানুর রহমান গ্রেফতার হত্যায় ব্যবহৃত অস্ত্র উদ্ধার নলসিটি থানা অভ্যন্তরে সাংবাদিকে মারধর পুলিশ সদস্য সাময়িক বরখাস্ত বিরামপুরে পরকীয়ায় আসক্ত স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীর থানায় অভিযোগ বানারীপাড়ায় অগ্নিকান্ডে পুড়েছে বসতঘরসহ ৮টি দোকান
অবসরে যাওয়ার কথা শুনে কাঁদলেন শিক্ষক শিক্ষার্থীরা ,ছুটে এলেন প্রাক্তন শিক্ষার্থীরাও

অবসরে যাওয়ার কথা শুনে কাঁদলেন শিক্ষক শিক্ষার্থীরা ,ছুটে এলেন প্রাক্তন শিক্ষার্থীরাও

মোঃ মনির হোসেন ঝালকাঠি : ঝালকাঠির জনপ্রিয় শিক্ষক মোঃ তৌহিদ হোসেন খান ১৯ শে সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার ঝালকাঠি হরচন্দ্র বালিকা বিদ্যালয় থেকে অবসরে চলে গেলেন। স্কুলের শিক্ষার্থীরা কেঁদে ফুলের শুভেচ্ছা দিয়ে ব্যান্ড বাজিয়ে প্রিয় শিক্ষককে বিদায় দিলেন। বিদায় বেলা শিক্ষাঙ্গনের শিক্ষকদের ও দুচোখ ভিজেছিল কান্নার পানিতে। প্রিয় শিক্ষকের অবসরে যাওয়ার কথা শুনে ছুটে এসেছেন প্রাক্তন শিক্ষার্থীরাও।
ঝালকাঠি হরচন্দ্র বালিকা বিদ্যালয় থেকে বিদায় নেওয়ার পরে সেখান থেকে প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা স্যারকে নিয়ে আসেন ঝালকাঠি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে।
মাঠে এক প্রীতি ফুটবল ম্যাচের আয়োজন করে শিক্ষার্থীরা সেখানে রেফারির দায়িত্ব পালন করেন মোঃ তৌহিদ হোসেন খান।
শিক্ষার্থীরা বলেন স্যার যখন প্রথম চাকুরী জীবনে ঝালকাঠি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় আসেন সেই থেকে স্কুলের খেলার মান অনেক ভালো হয়েছে বিভিন্ন পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন রানার চাপ হয়েছে আমাদের স্কুল।
স্যারের মতো একজন সৎ যোগ্যতা সম্পন্ন শিক্ষক হয়তো আর আসবেনা।

শিক্ষক তৌহিদ হোসেন খান বলেন আমি চাকুরীজীবনে প্রথম ১৯৯২ সালে ঝালকাঠি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় যোগদান করি। সেই থেকে ফুটবল ,হ্যান্ডবল, ক্রিকেট খেলায় অনেক পুরস্কার অর্জন করেছে স্কুলের শিক্ষার্থীরা। আজ আমি গর্বিত এত শিক্ষার্থী আমাকে ভালবাসে আমার অবসরের খবর শুনে সবাই ছুটে এসেছেন আমাকে ফুল দিয়ে বরণ করে নিয়েছে।
আমি সারা জীবন তোমাদের মাঝে বেঁচে থাকতে চাই।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019