২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১:২২ অপরাহ্ন, ১৩ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি, শনিবার, ১১ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নোটিশ
জরুরী ভিত্তিতে কিছুসংখ্যক জেলা-উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে যোগাযোগ- ০১৭১২৫৭৩৯৭৮
সর্বশেষ সংবাদ :
বরিশালে ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত রাষ্ট্রীয় পদক পাচ্ছেন কেএমপি’র তিন পুলিশ কর্মকর্তা ফেসবুকে ‘বলার ছিল অনেক কিছু’ লিখে ফাঁস দিল এসএসসি পরীক্ষার্থী বানারীপাড়ায় অবসরপ্রাপ্ত পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্মকর্তা আব্দুল মতিন চৌধুরীর ইন্তেকাল বানারীপাড়ায় বন্দর মডেল স্কুলে তিনদিন ব্যাপি বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত শিক্ষক-কর্মচারী কো-অপরেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লিঃ এর ১৭তম বার্ষিক সাধারণ সভা আগৈলঝাড়ায় অনুষ্ঠিত মুজিব”একটি জাতির রুপকার প্রদর্শিত হলো বরিশালের গৌরনদী লাইসেন্সবিহীন প্যাথলজি সেন্টারকে জরিমানা ও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে গৌরনদীতে এসএসসি পরীক্ষার্থীর অভিভাবকের কাছ থেকে ঘুস গ্রহণকালে ধরা কর্মকর্তা টাকা ভাগাভাগির দ্বন্দ্বে ৩ দিন পর দাফন হলো মরদেহ
জেএসসি এক স্কুলছাত্রী ইভটিজিং এর প্রতিবাদ করায় বখাটেরা স্কুল ছাত্রীর চাচা ও ভাইকে মারপিট করে আহত করেছে।

জেএসসি এক স্কুলছাত্রী ইভটিজিং এর প্রতিবাদ করায় বখাটেরা স্কুল ছাত্রীর চাচা ও ভাইকে মারপিট করে আহত করেছে।

সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে জেএসসি এক স্কুলছাত্রী ইভটিজিং এর প্রতিবাদ করায় বখাটেরা স্কুল ছাত্রীর চাচা ও ভাইকে মারপিট করে আহত করেছে।
এঘটনায় প্রতিবাদ করতে গেলে ওই এলাকার আব্দুল মোতালেবের ছেলে মোঃ ইয়ামিন শেখসহ ১০/১২জন বখাটে তাদেরকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন। গতকাল শনিবার বেলা ১২টার সময় উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের মেঘুল্লাহ গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটেছে। আহত স্কুলছাত্রীর ভাই হাফিজুর রহমান (৩০) ও চাচা আব্দুল ব্যাপারীকে (৪০) কে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিল্লাতুনেচ্ছা মজিব জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে ইভটিজিং এর শিকার মরিয়ম সোরহাব আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের জেএসসি পরীক্ষার্থী জানান, দীর্ঘদিন ধরে মোঃ ইয়ামিন শেখ আমাকে ইভটিজিং করে আসছে। গত শুক্রবার বিকালে আমাকে ইভটিজিং করলে আমি বাড়িতে এসে বলি।
ওই শিক্ষার্থীর ভাই আহত হাফিজুর রহমান জানান, স্কুলে যাতায়াত করার সময় আমার বোনকে উত্ত্যক্ত করে আসছিলো। আমি ও আমার চাচা আব্দুল ব্যাপারী ইয়ামিন শেখের বাবার কাছে বলতে গেলে আজুগড়া জামতৈল আলমাছ মেম্বরের বাড়ীর সামনে ইয়ামিন, আলমাজ, সুমন, হানিফ, ইয়াকুব, ইছাসিন, আলমগীর, জিহাদ, মোতালেব, রজমান, শরীফসহ ৬/৭জন দেশীয় অস্ত্র রামদা, ছুরি দিয়ে অর্তকিতভাবে হামলা করে। পরে আমাদের চিৎকারে এলাকাবাসী এসে আমাদের আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিল্লাতুনেচ্ছা মজিব জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। এসময় সোহেল, সোহাগ, দেলবার, আব্দুল, সাত্তারকেও মারপিট করে আহত করে।
এ ব্যাপারে বেলকুচি থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, ‘ঘটনাটি শুনেছি। ঘটনাস্থ পুলিশ পরিদর্শন করেছে। কোন অভিযোগ পায়নি। অভিযোগ পেলে অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা হবে। এ বিষয়ে আহত ওই শিক্ষার্থীর চাচাতো ভাই আব্দুল হালিম জানান, এ ব্যাপারে বেলকুচি থানায় মামলা প্রস্তুতি চলছে।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019