২২ Jul ২০২৪, ১১:৫১ পূর্বাহ্ন, ১৫ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি, সোমবার, ৭ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নোটিশ
জরুরী ভিত্তিতে কিছুসংখ্যক জেলা-উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে যোগাযোগ- ০১৭১২৫৭৩৯৭৮
প্রেমের টানে প্রেমিকের কাছে ছুটে এসে লাশ হয়ে ফিরলেন। আজকের ক্রাইম নিউজ ডট কম

প্রেমের টানে প্রেমিকের কাছে ছুটে এসে লাশ হয়ে ফিরলেন। আজকের ক্রাইম নিউজ ডট কম

যশোরের বাঘারপাড়ায় উদ্ধার হওয়া অজ্ঞাত মরদেহের পরিচয় মিলেছে। তার নাম জয়নব খাতুন (১৩)। জয়নব নড়াইল সদর উপজেলার মির্জাপুর গ্রামের জিয়াউর শেখের মেয়ে। সে উপজেলার মির্জাপুর দক্ষিণপাড়া খাদিজাতুল কোবরা মহিলা কওমি মাদরাসার পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী। গত সোমবার বিকেলে যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার ভাঙ্গুড়া বাজারের দক্ষিণ-পূর্ব পাশে মাঠের মধ্যে মাছের ঘের থেকে ভাসমান অবস্থায় পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করে।

এলাকাবাসীর ভাষ্য, প্রেমের টানে প্রেমিকের কাছে ছুটে এসেছিল পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ুয়া মাদরাসাছাত্রীটি। বাড়ি থেকে বের হওয়ার সময় বাবার মুঠোফোন, নিজের জামা-কাপড় এবং চার হাজার টাকাও নিয়ে এসেছিল সে। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি তার। সেই প্রেমিকই তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে মরদেহ মাছের ঘেরের পানিতে ফেলে দিয়েছে।

এ ঘটনায় নিহতের বাবা জিয়াউর শেখ বাদী হয়ে মজিবুল ইসলামকে (২৫) আসামি করে মঙ্গলবার বাঘারপাড়া থানায় হত্যা মামলা করেছেন। পুলিশ এখন পর্যন্ত মজিবুল ইসলামকে গ্রেফতার করতে পারেনি। মজিবুল ইসলাম যশোর সদর উপজেলার চাঁনপাড়া গ্রামের মোশারফ হোসাইনের ছেলে।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, জিয়াউর শেখের বড় জামাই যশোর সদর উপজেলার চাঁনপাড়া গ্রামের দারুল নাঈম জামে মসজিদের ইমাম। মসজিদের পাশের ভবনে স্ত্রীকে তিনি বসবাস করেন। সেই সূত্রে জয়নব মাঝে মধ্যে জামাইয়ের বাসায় আসতো। প্রায় এক মাস আগে চাঁনপাড়া গ্রামের মজিবুল ইসলামের সঙ্গ তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত রোববার বিকেল ৪টার দিকে জয়নব গোপনে তার ব্যবহৃত জামা-কাপড়, নগদ চার হাজার টাকা এবং একটি মোবাইল ফোন নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। এরপর সে আর বাড়িতে ফেরেনি। অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তার কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। এরপর রোববার রাত সাড়ে ৮টার দিকে মজিবুল ইসলামের মোবাইল ফোনে কল করা হলে তিনি কল রিসিভ করেন। জয়নবের কথা জানতে চাইলে তিনি কল কেটে দেন। এরপর বেশ কয়েকবার কল করা হলেও তিনি কল রিসিভ করেননি।

জয়নবের চাচা আজানুর রহমান শেখ বলেন, প্রেমের সম্পর্কের কারণে জয়নব রোববার বিকেলে গোপনে মজিবুল ইসলামের সঙ্গে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। পরদিন সোমবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে জয়নবের মরদেহ উদ্ধারের খবর পেয়েছি। মজিবুল ইসলাম তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে মাছের ঘেরের পানিতে ফেলে দিয়েছে।

বাঘারপাড়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জসীম উদ্দীন বলেন, প্রেমের কারণে বাড়ি থেকে বের হয় জয়নব। পরে প্রেমিকই তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে। এ ব্যাপারে মামলা হয়েছে। আসামিকে গ্রেফতারের জন্য অভিযান চালানো হচ্ছে।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019