২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৯:০৩ অপরাহ্ন, ১৩ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি, শনিবার, ১১ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নোটিশ
জরুরী ভিত্তিতে কিছুসংখ্যক জেলা-উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে যোগাযোগ- ০১৭১২৫৭৩৯৭৮
সর্বশেষ সংবাদ :
বরিশালে ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত রাষ্ট্রীয় পদক পাচ্ছেন কেএমপি’র তিন পুলিশ কর্মকর্তা ফেসবুকে ‘বলার ছিল অনেক কিছু’ লিখে ফাঁস দিল এসএসসি পরীক্ষার্থী বানারীপাড়ায় অবসরপ্রাপ্ত পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্মকর্তা আব্দুল মতিন চৌধুরীর ইন্তেকাল বানারীপাড়ায় বন্দর মডেল স্কুলে তিনদিন ব্যাপি বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত শিক্ষক-কর্মচারী কো-অপরেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লিঃ এর ১৭তম বার্ষিক সাধারণ সভা আগৈলঝাড়ায় অনুষ্ঠিত মুজিব”একটি জাতির রুপকার প্রদর্শিত হলো বরিশালের গৌরনদী লাইসেন্সবিহীন প্যাথলজি সেন্টারকে জরিমানা ও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে গৌরনদীতে এসএসসি পরীক্ষার্থীর অভিভাবকের কাছ থেকে ঘুস গ্রহণকালে ধরা কর্মকর্তা টাকা ভাগাভাগির দ্বন্দ্বে ৩ দিন পর দাফন হলো মরদেহ
এবার আওয়ামী লীগের নেতার হাতে যুবলীগ নেতাকে লাঞ্চিত। আজকের ক্রাইম নিউজ ডট কম

এবার আওয়ামী লীগের নেতার হাতে যুবলীগ নেতাকে লাঞ্চিত। আজকের ক্রাইম নিউজ ডট কম

নিউজ ডেক্স
বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জের দাড়িয়াল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও বরিশাল জেলা পরিষদ সদস্য সহিদুল ইসলাম হাওলাদার এর বিরূদ্ধে স্থানীয় যুবলীগ নেতাকে লাঞ্চিত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। খোদ আ’লীগ কার্যালয়ে বসে এই তুলকালাম কান্ড ঘটান তিনি। গত ২ নভেম্বর শনিবার রাত সাড়ে আটটার দিকে কামারখালী বাজারে এ ঘটনা ঘটে। পরে অবস্থা বেগতিক দেখে পুলিশকে খবর দিলে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এ সময় স্থানীয় জনতা উত্তেজিত হলে কৌশলে সটকে পড়েন সহিদ হাওলাদার। বর্তমানে এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। যে কোন সময় বড় ধরনের অপ্রিতীকর ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশংকা করছেন এলাকাবাসী।
জানা গেছে, কামারখালী কেএসইউ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হিসেবে নিয়োগ বানিজ্য, ঘুষ, দুর্নীতি সহ নানা অভিযোগে আদালতে মামলা করেন কমিটির অপর দুই সদস্য কামাল খান ও সুলতান হাওলাদার। মামলা করায় বাদীদের হাত-পা ভেঙ্গে পঙ্গু করার হুমকি দেয় একটি মহল। এদিকে সহিদ হাওলাদারের বিরূদ্ধে একটি অভিযোগ ডাকযোগে ইউনিয়ন পরিষদে পৌছায়। এটি পেয়ে কৌতুহলী জনতা মৃদুলা স্টুডিওতে বসে পড়তে ভীড় জমায়। সেখানে উপস্থিত ছিলেন কামারখালী বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও আ’লীগ নেতা মোঃ দুলাল এবং ৮নং ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতি ফরহাদ খান। এ কারনে সহিদ হাওলাদারে ১০/১২ জনের ক্যাডার বাহিনী তাদেরকে ডেকে ইউনিয়ন আ’লীগ কার্যালয়ে নিয়ে যায়। সেখানে সহিদ হাওলাদারে নেতৃত্বে তাদেরকে লাঞ্চিত করা হয়। এতে স্থানীয় জনতা প্রতিবাদ করলে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়। সহিদ হাওলাদারের বিচার চেয়ে স্লোগান দিতে থাকলে পরিস্থিতি আরো ঘোলাটে হয়। খবর পেয়ে সরষী পুলিশ ফাঁড়ি থেকে পুলিশ সদস্যরা গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। সেই সুযোগে ঘটনাস্থল থেকে সটকে পড়েন সহিদ হাওলাদার।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে সহিদ হাওলাদার বলেন, এলাকার একটি গ্রুপ দীর্ঘদিন যাবত আমার নামে আজেবাজে লেখালেখি করছিল। তাই ঐদিন ওদেরকে ডেকে জিজ্ঞেস করা হয়েছে। পরে শরষী পুলিশকে খবর দিলে তারা বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ^াস দিয়েছে।
সরষী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর সঞ্জিব বলেন, ওটা সম্ভবত তাদের নিজেদের মধ্যে ঝামেলা ছিল। খবর পেয়ে টহলরত পুলিশের এসআই হায়দার সহ একটি টিম ঘটনাস্থলে গিয়েছিল। বিষয়টি সমাধান করতে আমিও এখন ঘটনাস্থলে যাচ্ছি।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019