২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০:৪২ পূর্বাহ্ন, ১৪ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি, রবিবার, ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নোটিশ
জরুরী ভিত্তিতে কিছুসংখ্যক জেলা-উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে যোগাযোগ- ০১৭১২৫৭৩৯৭৮
সর্বশেষ সংবাদ :
ঝালকাঠিতে বীর মুক্তিযোদ্ধার গম চাষে নজর কেড়েছে তরুণ উদ্যোক্তাদের বাবুগঞ্জে আশার পক্ষ থেকে চিৎিসা সহায়তা প্রদান এসিল্যান্ড পরিচয়ে ব্যবসায়ীদের কাছে টাকা দাবি বরিশালে ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত রাষ্ট্রীয় পদক পাচ্ছেন কেএমপি’র তিন পুলিশ কর্মকর্তা ফেসবুকে ‘বলার ছিল অনেক কিছু’ লিখে ফাঁস দিল এসএসসি পরীক্ষার্থী বানারীপাড়ায় অবসরপ্রাপ্ত পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্মকর্তা আব্দুল মতিন চৌধুরীর ইন্তেকাল বানারীপাড়ায় বন্দর মডেল স্কুলে তিনদিন ব্যাপি বার্ষিক ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত শিক্ষক-কর্মচারী কো-অপরেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লিঃ এর ১৭তম বার্ষিক সাধারণ সভা আগৈলঝাড়ায় অনুষ্ঠিত মুজিব”একটি জাতির রুপকার প্রদর্শিত হলো বরিশালের গৌরনদী
এক স্কুলছাত্রকে ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। আজকের ক্রাইম নিউজ ডট কম

এক স্কুলছাত্রকে ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। আজকের ক্রাইম নিউজ ডট কম

নিউজ ডেক্স
পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়ায় দশম শ্রেণি পড়ুয়া এক স্কুলছাত্রকে ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। ঘটনার দেড় মাস পরে আজ বৃহস্পতিবার উপজেলার উত্তর ভিটাবাড়িয়া গ্রামের বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। তার বিরুদ্ধে একই গ্রামের সপ্তম শ্রেণি পড়ুয়া এক স্কুলছাত্রীর ঘরে ঢুকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় ভূক্তভোগী স্কুলছাত্রীর মা বাদী হয়ে ঘটনার দেড় মাস পর আজ বৃহস্পতিবার অভিযুক্ত স্কুলছাত্রের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন।

থানায় দায়েরকৃত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত ১৪ সেপ্টেম্বর ভাণ্ডারিয়ার ভিটাবাড়িয়া গ্রামের ওই ছাত্রীর মা তাকে বৃদ্ধ দাদুর কাছে রেখে চিকিৎসার জন্য বরিশাল যান। ঘটনার দিন রাতে বৃদ্ধ দাদু ও স্কুলছাত্রী বাড়িতে ছিল। রাতে ওই স্কুলছাত্রটি মেয়েটির ঘরে ঢুকে ধর্ষণ করে। পরদিন মেয়ের মা বাড়িতে আসলে এ ঘটনা তাকে জানায়। পরে লোকলজ্জার ভয়ে স্কুলছাত্রীর পরিবার বিষয়টি চেপে যান।

ভাণ্ডারিয়া থানার ওসি এস এম মাকসুদুর রহমান জানান, অভিযুক্ত স্কুলছাত্রকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষার প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019