রবিবার, ১৩ Jun ২০২১, ১০:৪৫ অপরাহ্ন

Notice :
চাকরির পেছনে না ছুটে উদ্যোক্তা হওয়ার পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর
সর্বশেষ সংবাদ :
আপনি কি আপনার অধিকার থেকে বঞ্চিত। বাবুগঞ্জের কেদারপুর ইউপি নির্বাচনে জামাল উদ্দিনের পক্ষে প্রচারণায় সাবেক সাংসদ টিপু সুলতান। মা-ছেলেসহ তিনজনকে হত্যায় এএসআই সৌমেন বরখাস্ত। পরকীয়া’র জেরেই স্ত্রী-পুত্রসহ তিনজনকে হত্যা করেন সৌমেন। বাবুগঞ্জে ওসির ব্যক্তি উদ্যোগে মাছের পোনা অবমুক্ত করা হয়েছে। সিলেটের আইনজীবীকে ১০ টি ট্যাবলেট খাইয়ে হত্যার দায় স্বীকার স্ত্রীর। বাকেরগঞ্জের ওসিসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে আইজিপিকে হাইকোর্টের নির্দেশ। স্ত্রীকে ২ কোটি টাকার ফ্ল্যাট উপহার দিয়ে দুদকের জালে ঝালকাঠির সাব-রেজিস্ট্রার। পিরোজপুরে নেশার টাকা না পেয়ে বাবাকে কুপিয়ে জখম। পটুয়াখালী জামাইয়ের দায়ের কোপে শাশুড়ির মৃত্যু।
র‌্যাপিড এ্যাকশান ব্যাটালিয়ান- র‌্যাব এর ক্যাম্প হচ্ছে মহেশখালীতে।

র‌্যাপিড এ্যাকশান ব্যাটালিয়ান- র‌্যাব এর ক্যাম্প হচ্ছে মহেশখালীতে।

অনলাইন ডেক্স
র‌্যাপিড এ্যাকশান ব্যাটালিয়ান- র‌্যাব এর ক্যাম্প হচ্ছে মহেশখালীতে। বিশেষভাবে জলদস্যু নির্মূলে এই ক্যাম্প স্থাপন করতে যাচ্ছে র‌্যাব। ক্যাম্প স্থাপনে ইতিমধ্যে সম্ভাব্যতা সম্পন্ন করা হয়েছে। অল্প সময়ের মধ্যে কার্যক্রম শুরু করা হবে। র‌্যাব- ১৫ (কক্সবাজার) এর উপ-অধিনায়ক মেজর রবিউল ইসলাম এই তথ্য জানান।

সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে মেজর রবিউল ইসলাম জানিয়েছেন, জলদস্যু প্রবণ মহেশখালীর জলদস্যুদের নির্মূল করতেই র‌্যাবের হাই কমান্ড মহেশখালীতে র‌্যাবের একটি কোম্পানি ক্যাম্প স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। শুধু জলদস্যু নয় অন্যান্য সন্ত্রাসীদের নির্মূলেও এই ক্যাম্প কাজ করবে। অন্যদিকে শুধু মহেশখালী নয়; আশেপাশের উপজেলা ও এলাকাগুলোতে কার্যক্রম চালানো হবে এই ক্যাম্প থেকে।

র‌্যাব-১৫ (কক্সবাজার) এর উপ-অধিনায়ক মেজর রবিউল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, অল্প সময়ের মধ্যেই এই ক্যাম্পটি স্থাপনের কাজ শুরু করা হবে। চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়ে গেলে তা গণমাধ্যমকে অবহিত করা হবে।

জানা গেছে, উপকূল এবং পাহাড় মিশ্রিত হওয়ায় মহেশখালীতে জলদস্যু ও সন্ত্রাসীদের ব্যাপক প্রভাব রয়েছে। অপরাধীরা সাগরে ডাকাতি এবং জনপদে হত্যাসহ নানা অপরাধ কর্মকান্ড ঘটায়। কিন্তু আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী অভিযানে গেলে পৌঁছাতে পৌঁছাতে সন্ত্রাসীরা প্যারাবন ও পাহাড়ে ঢুকে পড়ে। এতে সন্ত্রাসীদের ধরতে হিমশিম খেতে হয়। র‌্যাব ক্যাম্প স্থাপন হলে দ্রæত অভিযান এবং স্থায়ীভাবে র‌্যাব সদস্যরা অবস্থান করবে। এতে সন্ত্রাসী সহজে পালাতে পারবে না। ফলে তাদের ধরতে সহজ হবে। একই ভাবে দ্রæত অভিযানে ধরা পড়ার ভয়ে সন্ত্রাসীরা অপকর্ম করতে পারবে না। তাই র‌্যাব ক্যাম্পটি স্থাপন করা হলে মহেশখালীতে নিরাপত্তা আরো জোরদার হবে। এতে কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রসহ চলমান উন্নয়ন প্রকল্পগুলোর কাজ নির্বিঘেœ করা যাবে। নিশ্চিত সেসব প্রকল্পে কর্মরত লোকজনের নিরাপত্তাও।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019
Bengali English