২৬ Jun ২০২৪, ০১:৪৪ পূর্বাহ্ন, ১৯শে জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি, বুধবার, ১৩ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নোটিশ
জরুরী ভিত্তিতে কিছুসংখ্যক জেলা-উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে যোগাযোগ- ০১৭১২৫৭৩৯৭৮
সর্বশেষ সংবাদ :
ডিসি, ইউএনওকে সম্মানি দেওয়ার কথা বলে প্রবেশপত্র আটকে রেখেছেন অধ্যক্ষ পরীমণির সঙ্গে রাত্রীযাপন: বাধ্যতামূলক অবসরে সেই পুলিশ কর্মকর্তা বানারীপাড়ায় শিশু বলাৎকার চেষ্টার অভিযোগে গ্রেফতার হওয়া সেই বিএনপি নেতা বহিস্কার মামুনুল হকের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা ঘোড়াঘাটে ২০ ভায়াল এন্টিভিনম মজুদ, চাহিদা ৪০ ভায়াল সিলেটে ফের ভারি বৃষ্টিপাতের আভাস দর্শনার লিখনের চিকিৎসারত অবস্থায় মৃত্যু চুয়াডাঙ্গায় পিতাকে দাওয়াতে পাঠিয়ে তালা ভেঙ্গে ৯ লাখ টাকা চুরি,পরে পুত্র গ্রেফতার ডিমলায় পাট চাষিদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত বিরামপুরে কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে সার ও বীজ বিতরণ
বরগুনায় কামরুন্নাহার সেতু হত্যা মামলায় একজনের যাবজ্জীবন

বরগুনায় কামরুন্নাহার সেতু হত্যা মামলায় একজনের যাবজ্জীবন

জলিলুর রহমান স্টাফ রিপোর্টার : বরগুনার পাথরঘাটায় চাঞ্চল্যকর সেতু হত্যা মামলায় প্রধান আসামি পাথরঘাটা উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি জিয়াউল হক ছোট্টকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়াও ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে বলে জানাগেছে।

বুধবার (২৩ অক্টোবর) দুপুরে বরগুনা নারী ও নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক হাফিজুর রহমান এ রায় দেন। আর অন্য আসামিদের বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে।

এ মামলার অন্য আসামিরা হলেন- প্রধান আসামি জিয়াউল হক ছোট্টর স্ত্রী নাহিদ সুলতানা লাকি, আবদুল্লাহ আল মামুন কাজী ও আনিচুর রহমান রেজবি খান। তাদের সবার বাড়ি পাথরঘাটা পৌরসভায়। আসামির পক্ষে কৌঁসুলি ছিলেন অ্যাডভোকটে কমল কান্তি রায় ও সরকার পক্ষে ছিলেন পিপি মোস্তাফিজুর রহমান।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১২ সালের ২৯ জুন আসামিরা পাথরঘাটা কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী কামরুন্নাহার সেতুকে (১৭) নির্যাতন করার পর বিষ খাইয়ে হত্যা করে আসামিরা। পরদিন ৩০ জুন সেতুর বড় ভাই নজরুল ইসলাম রিপন বাদি হয়ে মামলা করেন। দীর্ঘদিন মামলা চলার পর এ হত্যা মামলার রায় দেওয়া হয়।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019