২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:৩৭ অপরাহ্ন, ১২ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি, শুক্রবার, ১০ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নোটিশ
জরুরী ভিত্তিতে কিছুসংখ্যক জেলা-উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে যোগাযোগ- ০১৭১২৫৭৩৯৭৮
সর্বশেষ সংবাদ :
মায়ের জানাজায় অংশ নিতে ফিরলেন ইতালি থেকে, সড়কে ঝরল প্রাণ অনিবন্ধিত সব স্বাস্থ্যকেন্দ্র দ্রুত বন্ধ করা হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঝালকাঠি’তে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) এর উদ্যোগে প্রতিনিধি সভা অনুষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় বিএমপি কমিশনার এর অংশগ্রহণ বিরামপুর খানপুর ইউনিয়নে স্বল্প মূল্যে টিসিবির পন্য বিতরনের শুভ উদ্বোধন দামুড়হুদার কুড়ুলগাছি শিক্ষক – অভিভাবক সমাবেশ সকলকে সমন্বয়ের মাধ্যমে শিক্ষার মান উন্নয়নে কাজ করতে হবে, -জেলা প্রশাসক তেল-গ্যাস উত্তোলনে বিদেশিদের বিনিয়োগের আহ্বান জানালেন প্রধানমন্ত্রী প্রতারণার অভিযোগে স্বামীসহ যুব মহিলা লীগ নেত্রী মিম গ্রেপ্তার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত জিকে শামীমের জামিন বাংলাবান্ধা-পঞ্চগড় মহাসড়কে বালু-পাথর ব্যবসা লোড আনলোডে জনদূভোর্গ সড়ক দূর্ঘটনা আশংকা
ভোলা নাগরিক ঐক্য ফোরাম উদ্যোগে সকল নৌ ঘাটে প্রবেশ ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদ জানিয়েছেন

ভোলা নাগরিক ঐক্য ফোরাম উদ্যোগে সকল নৌ ঘাটে প্রবেশ ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদ জানিয়েছেন

প্রেস বিজ্ঞপ্তি : অদ্য ১২ অক্টোবর ২০১৯ইং শনিবার সকাল ১১ টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে দ্বীপজেলা ভোলা নাগরিক ঐক্য ফোরামের উদ্যোগে দেশের সকল নৌ ঘাটে প্রবেশ ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি সৈয়দ শাহ আলম। উপস্থিত ছিলেন, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মোস্তফা, সহ-সভাপতি নাহিদুল ইসলাম শান্ত, কামাল হাওলাদার, মোঃ হোসেন, সৈয়দ সেলিম রেজা, মোঃ ফারুক, যুগ্ম সম্পাদক কামাল আহমেদ, নূর মোর্শেদ, মাকসুদুর রহমান, আওলাদ হোসেন, মফিজুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক আক্কাস আলী, আব্দুর রহমান পনির, জাকির হোসেন, রফিকুল ইসলাম, লাভলু পাটোয়ারী, দপ্তর সম্পাদক মহসিন রানা, মহিলা সম্পাদিকা খাদিজা রহমান, আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. ইউসুফ হোসেন প্রমুখ।
সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন, ভাড়াটিয়া পরিষদের সভাপতি মোঃ বাহারানে সুলতান বাহার, মানবাধিকার জোটের মহাসচিব সাংবাদিক মিলন মল্লিক, নাগরিক পরিষদের আহ্বায়ক মোহাম্মদ শামসুদ্দিন প্রমুখ।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, সরকার দেশের সকল নৌ ঘাটে প্রবেশ ফি বৃদ্ধি করে দ্বিগুণ করেছে। এতে করে পুরো দক্ষিণবঙ্গ তথা দ্বীপজেলা ভোলাসহ বরিশাল বিভাগবাসী এই ফি বৃদ্ধির সবচেয়ে বেশি ভুক্তভোগী হবে। কারণ দ্বীপজেলা ভোলার সাথে সারাদেশের যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম নৌপথ এবং বরিশাল বিভাগের সাথে সারাদেশের যোগাযোগের প্রধান মাধ্যম নৌপথ। এর আগেও বিভিন্ন সময় প্রবেশ ফি (টোল) বৃদ্ধি হলেও সেবার মান বাড়েনি। এখনো বিভিন্ন নৌ ঘাটে টার্মিনাল নাই। যাও আছে তাহা মানুষের ব্যবহারের অনুপযোগী। কোথাও টয়লেট নাই। আবার কোথাও বসার ব্যবস্থা নাই। অথচ ফি (টোল) ঠিকই আদায় করে নিচ্ছে। ঢাকা সদরঘাট সহ দেশের প্রায় সকল নৌ ঘাটগুলো চাঁদাবাজদের দখলে। প্রায় সময় এই অঞ্চলের লোকদেরকে চাঁদাবাজদের আর্থিক-মানসিক ভাবে লাঞ্ছিত হতে হয়। তাই আমরা দাবী করছি সকল নৌ ঘাটগুলোকে চাঁদাবাজ মুক্ত করতে হবে এবং ঘাট ফি বৃদ্ধি প্রত্যাহার করে পূর্বের ফি বহাল করার জোর দাবী করছি।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019