২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০২:০৫ অপরাহ্ন, ১২ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি, শুক্রবার, ১০ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নোটিশ
জরুরী ভিত্তিতে কিছুসংখ্যক জেলা-উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে যোগাযোগ- ০১৭১২৫৭৩৯৭৮
সর্বশেষ সংবাদ :
মায়ের জানাজায় অংশ নিতে ফিরলেন ইতালি থেকে, সড়কে ঝরল প্রাণ অনিবন্ধিত সব স্বাস্থ্যকেন্দ্র দ্রুত বন্ধ করা হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঝালকাঠি’তে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) এর উদ্যোগে প্রতিনিধি সভা অনুষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় বিএমপি কমিশনার এর অংশগ্রহণ বিরামপুর খানপুর ইউনিয়নে স্বল্প মূল্যে টিসিবির পন্য বিতরনের শুভ উদ্বোধন দামুড়হুদার কুড়ুলগাছি শিক্ষক – অভিভাবক সমাবেশ সকলকে সমন্বয়ের মাধ্যমে শিক্ষার মান উন্নয়নে কাজ করতে হবে, -জেলা প্রশাসক তেল-গ্যাস উত্তোলনে বিদেশিদের বিনিয়োগের আহ্বান জানালেন প্রধানমন্ত্রী প্রতারণার অভিযোগে স্বামীসহ যুব মহিলা লীগ নেত্রী মিম গ্রেপ্তার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত জিকে শামীমের জামিন বাংলাবান্ধা-পঞ্চগড় মহাসড়কে বালু-পাথর ব্যবসা লোড আনলোডে জনদূভোর্গ সড়ক দূর্ঘটনা আশংকা
পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ায় ১২০ পিছ ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ

পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ায় ১২০ পিছ ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ

পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলার লক্ষিপুরা গ্রাম থেকে মাদক কারবারী ইকবাল মল্লিক ও ভগ্নিপতি রেজাউল খানকে ১শ ২০ পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার করেছে ভান্ডারিয়া থানা পুলিশ। গতকাল শুক্রবার দুপুরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে লক্ষিপুর গ্রামে ভগ্নিপতি রেজাউল খানের বাড়ীতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে মাদক বেচাকেনার সময় তাদেরকে গ্রেফতার করে। পুলিশ পরিদর্শক ফরিদ হোসেনের নেতৃত্বে এস আই কইউম, এস এই গোলাম মোস্তফা, এস এই নুরুল আমিন, এ এস আই ফেরদৌস সহ সঙ্গীয় ফোর্স এ অভিযান পরিচালনা করে। এ সময়ে ইকবাল এস আই নুরুল আমীনের হাত কামর দিয়ে পালানোর চেষ্টা করলে নুরু আমিন আহত হয়। তাকে ভা-ারিয়া হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে। ইতিপূর্বে গ্রেফতারকৃত ইকবাল মল্লিক,তার স্ত্রী, বেশ কয়েকবার ফেন্সিডিল সহ গ্রেফতার হয়। বর্তমানে তার ছোট ভাই রাজীব মল্লিক সম্প্রতি ইয়াবা সহ গ্রেফতার হয়ে জেল হাজতে রয়েছে। সম্প্রতি জিআর ১৭৪/২১৭ (ভান্ডারিয়া) মামলায় ইকবাল মল্লিককে ১০ বছর ছয় মাসের সশ্রম কারাদন্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা আনাদায়ে আরো ৬ মাসের সাজা প্রদান করে আদালত। এছাড়া তার বিরুদ্ধে ভান্ডারিয়া, রাজাপুর ও কাঠালিয়া থানায় মাদক ও ডাকাতি সহ ৯ টি মামলা রয়েছে। মাদক কারবারী ইকবাল মল্লিক লক্ষিপুরা গ্রামের মৃত রুস্তুম আলী মল্লিকের এবং রেজাউল খান একই গ্রামের মৃত মতিন খানের পুত্র। এ বিষয়ে ভান্ডারিয়া থানার অফিসার্স ইন চার্জ এস এম মাকসুদুর রহমান জানান, প্রায় ২মাস ধরে নজরদারির পর শুক্রবার ধরতে সক্ষম হয়েছি। ইকবাল ও রেজাউলের বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে আরো একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019