২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১:৫৭ পূর্বাহ্ন, ১২ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি, শুক্রবার, ১০ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নোটিশ
জরুরী ভিত্তিতে কিছুসংখ্যক জেলা-উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে যোগাযোগ- ০১৭১২৫৭৩৯৭৮
সর্বশেষ সংবাদ :
মায়ের জানাজায় অংশ নিতে ফিরলেন ইতালি থেকে, সড়কে ঝরল প্রাণ অনিবন্ধিত সব স্বাস্থ্যকেন্দ্র দ্রুত বন্ধ করা হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী ঝালকাঠি’তে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) এর উদ্যোগে প্রতিনিধি সভা অনুষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় বিএমপি কমিশনার এর অংশগ্রহণ বিরামপুর খানপুর ইউনিয়নে স্বল্প মূল্যে টিসিবির পন্য বিতরনের শুভ উদ্বোধন দামুড়হুদার কুড়ুলগাছি শিক্ষক – অভিভাবক সমাবেশ সকলকে সমন্বয়ের মাধ্যমে শিক্ষার মান উন্নয়নে কাজ করতে হবে, -জেলা প্রশাসক তেল-গ্যাস উত্তোলনে বিদেশিদের বিনিয়োগের আহ্বান জানালেন প্রধানমন্ত্রী প্রতারণার অভিযোগে স্বামীসহ যুব মহিলা লীগ নেত্রী মিম গ্রেপ্তার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত জিকে শামীমের জামিন বাংলাবান্ধা-পঞ্চগড় মহাসড়কে বালু-পাথর ব্যবসা লোড আনলোডে জনদূভোর্গ সড়ক দূর্ঘটনা আশংকা
রংপুরে স্বামী স্ত্রী পাশাপাশি লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ

রংপুরে স্বামী স্ত্রী পাশাপাশি লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ

রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলায় স্বামী-স্ত্রীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ইউনিয়নের ওমর বালাটারী গ্রামের নিজ ঘরের ভেতর সাবের আলী-মুক্তারা বেগমের লাশ পাশাপাশি অবস্থায় ছিল। সাবের লাশ ছিল ঝুলন্ত অবস্থায়, মুক্তারা পড়েছিলেন মেঝেতে।

আজ মঙ্গলবার দুপুর ১২ দিকে লাশ দুটি উদ্ধার করে পুলিশ।

জানা গেছে, ১৫ বছর আগে সাবের আলী ও মুক্তারা বেগমের বিয়ে হয়। তাদের ঘরে দুই মেয়ে ও একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। ঘটনার সময় এক ছেলে এবং এক মেয়ে নানির বাড়িতে ছিল। বড় মেয়ে সাথী বেগম সকাল ১১ টার দিকে কোচিং শেষে বাড়ি ফিরে ঘরের দরজা বন্ধ পেয়ে অনেকক্ষণ ধাক্কাধাক্কি করেন। কিন্তু ভেতর থেকে কোনো সাড়া শব্দ না আসায় সে চিৎকার শুরু করে। পরে অন্যান্য প্রতিবেশীরা সেখানে এসে দরজা ভেঙে দেখতে পায় ঘরের আড়ার সঙ্গে ওড়না লাগিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলে আছেন সাবের আলী। মেঝেতে পড়ে থাকতে দেখা যায় মুক্তারা বেগমকে।

স্থানীয়রা পরে গঙ্গাচড়া থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে লাশদুটি উদ্ধার করে। এলাকবাসী জানায়, স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে পারিবারিক কলহ ছিল। তাদের ধারণা, পারিবারিক কলহের জের ধরে স্ত্রীকে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে হত্যার পর ওই ওড়না দিয়েই সাবের আলী নিজেও গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

গঙ্গাচড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমান বলেন, স্বামীর আত্মহত্যার বিষয়টি নিশ্চিত। কিন্তু মুক্তারা বেগম আত্মহত্যা করেছেন নাকি তাকে হত্যা করা হয়েছে তার নিশ্চিত করা যায়নি। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ দুটি রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রতিবেদন পেলে বাকি তথ্য জানা যাবে।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019