১৬ Jun ২০২৪, ০৫:৪২ অপরাহ্ন, ৯ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি, রবিবার, ২রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নোটিশ
জরুরী ভিত্তিতে কিছুসংখ্যক জেলা-উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে যোগাযোগ- ০১৭১২৫৭৩৯৭৮
সর্বশেষ সংবাদ :
স্বামী বিদেশ, টাকা-স্বর্ণালংকার নিয়ে ভাতিজার সঙ্গে উধাও চাচি সিলেট সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর পানি বিপৎসীমার উপরে ঝালকাঠিতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২ বিরামপুর দিওড় ইউনিয়নে স্বল্পমূল্যে টিসিবির পণ্য বিতরণ করেন-চেয়ারম্যান বামনডাঙ্গায় বুড়িমারী এক্সপ্রেস ট্রেনের যাত্রা বিরতির দাবীতে আবারো মানববন্ধন ও গণ অবস্থান কর্মসূচি জনপথ বিভাগ ও স্কুল এন্ড কলেজের জায়গা দখল সংবাদ প্রচার করায় সাংবাদিককে হত্যার হুমকি, থানায় জিডি প্রধানমন্ত্রীর সুদক্ষ নেতৃত্বে দেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল -নাঈমুজ্জামান ভূইয়া মুক্তা দেহেরগতি ইউনিয়নে ঈদ উপহারের চাল পেল ১৭২৪ টি পরিবার আগৈলঝাড়ার রাজিহার ইউনিয়নে ঈদে সরকারের খাদ্য সহায়তা পেলেন ২৯৪৭ পরিবার বানারীপাড়ায় ব্যবসায়ী সালাম গোলন্দাজ হত্যা মামলা আড়াল করতে স্বাক্ষীদের বিরুদ্ধে ধর্ষণ চেষ্টা মামলা
মজুদ কৃত মধু মান সম্মত না হওয়ায় বিসিসির মামলা ব্যাবসায়ীর বিরুদ্ধে।

মজুদ কৃত মধু মান সম্মত না হওয়ায় বিসিসির মামলা ব্যাবসায়ীর বিরুদ্ধে।

বুধবার (০২ অক্টোবর) বরিশাল সিটি করপোরেশনের স্যানিটারী ইন্সপেক্টর সৈয়দ এনামুল হক বাদী হয়ে চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলাটি দায়ের করেন।

মামলা দায়েরের পর আদালতের বিচারক বিবাদীর বিরুদ্ধে সমন জারি করেছেন বলে জানিয়েছেন জনসংযোগ কর্মকর্তা বেলায়েত হাসান বাবলু।

বিষয়টি নিশ্চিত করে বাদী পক্ষের আইনজীবি মঞ্জুয়ারা গিয়াস বলেন, নিরাপদ খাদ্য আইন ২০১৩ এর ২৬ ধারায় মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। মামলায় নগরের ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের এম এ জলিল সড়কের মনসুর কোয়ার্টার এলাকার মীম মধু ঘরের স্বত্তাধিকারী মোঃ আনোয়ার হোসেনকে বিবাদী করা হয়েছে। মোঃ আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী ময়না বেগম এ মধু উৎপাদনের কাজের সাথে জড়িত। যাদের মীম ফুড প্রোডাক্টস নামে কোম্পানি রয়েছে। আর সেই কোম্পানির ব্যানারে এ মধু বিক্রি করা হচ্ছিলো।

মামলা সূত্রে জানাগেছে, চলতি বছরের গত ২০ জুন নগরের ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের এম এ জলিল সড়কের মনসুর কোয়ার্টার এলাকায় মীম মধু ঘর নামের দোকান পরিদর্শন করেন মামলার বাদী স্যানিটারী ইন্সপেক্টর সৈয়দ এনামুল হক। এসময় সেই দোকানে বিক্রির উদ্দেশ্যে থাকা মীম ফুড প্রোডক্টস এর মধু ভেজাল সন্দেহ হওয়ায় তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরবর্তীতে যথাযথভাবে পরীক্ষার জন্য জনস্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের পাবলিক হেলথ ল্যাবরোটরিতে পাঠানো হয়। সেখান থেকে পরীক্ষার প্রতিবেদনে ওই মধু মানসম্পন্ন নয় বলে উল্লেখ করা হয়।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019