মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১, ০৬:১৪ অপরাহ্ন

Notice :
প্রকাশ্যে ধূমপান করে তোপের মুখেপড়া এক তরুণীর ভিডিও ভাইরাল।চরমোনাই পীরের ওয়াজ মাহফিল বাতিল।বিএনপির কোনো নেতাকর্মী যেন পদ্মা সেতু পার না হয় বললেন শাজাহান খান।জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য অনুযায়ী, ভাতাপ্রাপ্ত প্রায় দুই হাজার বীর মুক্তিযোদ্ধার বয়স ৫০–এর নিচে।করোনা আক্রান্ত কনের অভিনব পদ্ধতিতে বিয়ে (ভিডিও)আবাসিক হোটেলে জনপ্রিয় অভিনেত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ।পুলিশে হঠাৎ বড় রদবদল।ইউটিউবে যাত্রা শুরু করছেন মিজানুর রহমান আজহারী।
খালেদা জিয়াকে দেখতে হাসপাতালে প্রধানমন্ত্রী আহ্বান জানিয়েছে

খালেদা জিয়াকে দেখতে হাসপাতালে প্রধানমন্ত্রী আহ্বান জানিয়েছে

অনলাইন ডেস্ক :: বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা নিজের বিচার-বিবেচনায় বোঝার জন্য সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হাসপাতালের কেবিনে এসে দেখে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির সংসদ সদস্যরা।

বুধবার বিকেলে দলের চার সংসদ সদস্য হাসপাতালে ভর্তি খালেদা জিয়াকে দেখতে এসে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি এ আহ্বান জানান। তারা বলেন, প্রধানমন্ত্রী যদি এই মুহূর্তে বেগম জিয়াকে দেখেন তাহলে তার মায়া হবে। মানবিকভাবেই তিনি খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয় বিবেচনায় নেবেন।

বিকেল ৩টা ২০ মিনিটে সংসদ সদস্য গোলাম মোহাম্মাদ সিরাজের নেতৃত্বে মোশাররফ হোসেন, জাহিদুর রহমান এবং রুমিন ফারহানা চিকিৎসাধীন খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে যান। প্রায় পৌনে এক ঘণ্টা খালেদার পাশে অবস্থান করেন তারা।

পরে সেখান থেকে বের হয়ে গোলাম মোহাম্মাদ সিরাজ সাংবাদিকদের বলেন, আমরা সাতজন সংসদ সদস্য সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রীর কাছে বলতে চাই, প্রধানমন্ত্রী আপনি নিজে একবার আসুন, আপনি দেখে যান আমাদের তিনবারের প্রধানমন্ত্রীকে। আমরা নিশ্চিত আপনার মানবিকবোধ জাগ্রত হবে। আমরা নিশ্চিত আপনার মায়া হবে।

তিনি বলেন, আমরা বিশ্বাস করি আমাদের নেত্রী রাজনৈতিক বন্দি। রাজনৈতিক সদিচ্ছা সিদ্ধান্ত দরকার তার জামিনের জন্য। আপনি প্রধানমন্ত্রী আমলাতান্ত্রিক পরামর্শ না নিয়ে দয়া করে রাজনৈতিক দূরদর্শিতায় দয়া করে সিদ্ধান্ত দেন। জামিনের ব্যবস্থা করেন। রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত ছাড়া ম্যাডামের মুক্তি হবে না।

আমরা ম্যাডামকে দেখতে আসছিলাম, আপনার (প্রধানমন্ত্রীর) কাছে আমাদের অনুরোধ ম্যাডামের জামিনের ব্যবস্থা করে দেন।

আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, জামিনের বিষয়টি আদালতের ব্যাপার, আপনি কোন দৃষ্টিভঙ্গি থেকে মানবিক দিকের কথা বলছেন? জবাবে সিরাজ বলেন, রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত ছাড়া কি জামিন হবে? আজকে আমাদের হাইকোর্ট সুপ্রিম কোর্ট বিব্রতবোধ করেন তার জামিনের বিষয়ে। প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্ত ছাড়া আসলে ম্যাডামের জামিন হবে না।

এক প্রশ্নের জবাবে সিরাজ বলেন, ম্যাডাম অবশ্যই মুক্তি চান, তিনি বিশ্বাস করেন তিনি কোনো অপরাধ করেননি। চিকিৎসার ব্যাপারে ম্যাডামের বক্তব্য হলো- তিনি বাংলাদেশে চিকিৎসা পাচ্ছেন না। সেখানে বিদেশি ডাক্তার প্রয়োজন হলে যাবেন। সেটা আমাদের সিদ্ধান্ত নয়, সেটা ম্যাডামের নিজস্ব সিদ্ধান্ত হতে হবে। পরিবারের সিদ্ধান্ত হতে হবে। আগে তার মুক্তি দরকার।

বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য বিদেশ যাওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন কি না জানতে চাইলে সিরাজ বলেন, বিদেশ যাওয়ার বিষয়ে আমাদের সঙ্গে কোনো কথা হয়নি। ম্যাডামের বক্তব্য হলো আমার চিকিৎসা হচ্ছে না। ম্যাডাম সহসা বিদেশে চিকিৎসা নিতে চান না। বিদেশে লাগলে তিনি যাবেন।

চেয়ারপারসনের মুক্তির জন্য সরকারের সঙ্গে কোনো নেগোসিয়েশন হচ্ছে কি না-এমন কোনো বার্তা নিয়ে আপনারা আসছেন কিনা জানতে চাইলে সিরাজ বলেন, ‘না’।

দ্বিধাবিভক্ত হয়ে আপনারা (এমপিরা) আসলেন কেন? এমন প্রশ্নে বলেন, চারজনের বেশি দেখা করার নিয়ম নেই।

এ সময় ছাত্রদল সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় নেতা মাহামুদুল হাসান বাপ্পীসহ সংগঠনটির বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2019
Bengali English